• আজ ২রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধ: জামাইকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ শ্বশুরের বিরুদ্ধে

৮:৪৩ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৯ চট্টগ্রাম
Lakshmipur Pic

মু.ওয়াছীঊদ্দিন,লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে শ্বশুর বাড়ি ডেকে নিয়ে জামাই জোবায়ের হোসাইন (৩৫) কে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানোর অভিযোগ উঠেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে।

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার দিকে শ্বশুর বাড়ি থেকে ফেরার সময় সদর উপজেলার নেয়ামতপুর গ্রামের একটি কালভার্টের উপর তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে খালে ফেলে দেয়া হয়। পরে মুমূর্ষ অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে খাল থেকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে তার অবস্থার অবনতিতে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। আহত জোবায়ের লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের বাঞ্চানগর এলাকার আবদুল খালেক সদাগর বাড়ির  মৃত মাও. ইসমাইল হোসেনের ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকুরী করেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জোবায়ের ও তার ভাতিজা মো. শাহজাহান জানান, ৩ বছর পূর্বে সদর উপজেলার নেয়ামতপুর গ্রামের আমিনুল ইসলাম খসরুর মেয়ে ফারিহার সাথে জোবায়েরের বিয়ে হয়। কয়েকদিন পূর্বে জোবায়েরের ঢাকার বাসা থেকে তার শাশুড়ি নাজমুন নাহার বিশেষ প্রয়োজনের কথা বলে ৫ লাখ টাকা ধার নেয়। এর কয়েকদিন পরেই আবার শ্বশুর জমি কিনার কথা বলে আরো ৫ লাখ টাকা ধার নেয়। উক্ত পাওনা টাকা চাওয়া নিয়ে জামাই-শ্বশুরের মাঝে বিরোধ দেখা দেয়। এ বিরোধকে কেন্দ্র করে স্ত্রী ফারিহাও ঘরে থাকা নগদ আরো ৫ লাখ টাকা ও ১১ ভরি স্বর্ণালংকারসহ দুই সন্তানকে নিয়ে বাপের বাড়ি চলে যায়। এ ঘটনায় আদালতে মামলাও করেন জোবায়ের। এ ঘটনায় সোমবার বিকেলে বিষয়টি সমাধান ও স্ত্রীকে ফেরত দেওয়ার কথা বলে জোবায়ের ও তার পরিবারের লোকজনকে ডেকে নেয় শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

পরে সেখান থেকে রাতে মোটরসাইকেল যোগে লক্ষ্মীপুর শহরে ফেরার পথে শ্বশুর আমিনুল ইসলাম খচরুর নেতৃত্বে মামা শ্বশুর আবদুল হকসহ ১২/১৩জন একটি সঙ্গবদ্ধ দল অস্ত্র ঠেকিয়ে জোবায়েরকে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে নেয়ামতপুর এলাকার একটি কালভার্টের উপর তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। এসময় জোবায়ের অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে পাশের খালে পেলে চলে যায় তারা। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় পরিবারের অন্য সদস্যরা তাকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. কমলাশীষ রায় বলেন, জোবায়েরের মাথা ও চোখে নিচে জখম রয়েছে। এছাড়াও শরীরর বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে স্থানন্তর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি-তদন্ত  মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন জানান, হামলার ঘটনায় খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।