যারা বেঈমানি করে, তাদের কখনোই স্বাভাবিক মৃত্যু হয় না: কাদের

৩:৪০ অপরাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ইতিহাসের বিভিন্ন বিশ্বাসঘাতকতা ও হত্যাকাণ্ডের কথা উল্লেখ করে আওয়ামী লী‌গের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কা‌দের বলেছেন, ইতিহাস সাক্ষী রয়েছে, যারা বেঈমানি করে, যারা ঘাতক, তাদের কখনোই স্বাভাবিক মৃত্যু হয় না। সবসময় অপমৃত্যু ঘটে।

বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে তাঁতী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস স্মরণে আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘ইতিহাসের মীমাংসিত বিষয় নিয়ে যারা রাজনীতি করে, এরা কারা? পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট নিয়ে রাজনীতি করে, এরা কারা। ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি ও পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করেছে, তারা কারা? এরা ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। এরাই ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের সঙ্গেও জড়িত।’

তিনি বলেন, ‘আরও অপ্রাসঙ্গিক হচ্ছে বিএনপি। দলটি এখন অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে এবং ভবিষ্যৎ বিপন্ন মনে করে আবোল-তাবোল বলছে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘এ দল জাতির পিতার খুনের সঙ্গে জড়িত। জাতির পিতার কন্যা মুক্তির সংগ্রামের কান্ডারি শেখ হাসিনাকে হত্যার চক্রান্ত করেছিল গ্রেনেড হামলা করে। এ সত্য জনগণের বিবেকের আদালতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এতে বিএনপি অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে এবং ভবিষ্যৎ বিপন্ন মনে করে আবোল-তাবোল বলছে।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘খুন আর হত্যার রাজনীতিতে বিএনপির হাত রক্তে রঞ্জিত। তারা বাংলাদেশের ইতিহাস থেকে জাতির পিতাকে মুছে দেয়ার চেষ্টা কম করেনি। ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে তারা যতই মুছে ফেলতে চেয়েছে তত তারাই নিজেরা মুছে গেছে, সংকুচিত হয়েছে। তারেক রহমান ২১ আগস্টের মাস্টার মাইন্ড আর জিয়াউর রহমান ১৫ আগস্টের মাস্টার মাইন্ড।’

এ সময় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি নেতা তারেক রহমান টেমস নদীর তীরে বসে কাকে নাকি জাতীয়তাবাদী জাতির পিতা বানাচ্ছে। কে কী হবে সেটি সাধারণ মানুষ ঠিক করবে। তাদের এক নেতা টেমস নদীর পারে বসে অনেক কিছু বলেন।’