সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

টঙ্গী পূর্ব থানা এলাকায় আবারো ছিনতাইকারীর ছু‌রিকাঘা‌তে যুবক নিহত

১১:৪২ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ ঢাকা
Tongi

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর:  গাজীপুর মহানগরের টঙ্গী পূর্ব থানাধীন ক‌লেজ‌গেট এলাকায় ছিনতাইকারীর ছু‌রিকাঘা‌তে আবারও এক যুবক নিহত হয়েছেন।  নিহতের নাম কামরুল ইসলাম (৩৫)। ইতোপূর্বেও টঙ্গী পূর্ব থানাধীন এলাকায় ছিনতাইকারীর হামলায় প্রাণহানীর ঘটনা ঘটেছে।

 শ‌নিবার (৭ সে‌প্টেম্বর) ভো‌রে এ ঘটনা ঘ‌টে‌। নিহত কামরুল না‌টোর সদর থানার শ্রী কৃষ্ণপুর এলাকার মৃত আবুল কা‌শে‌মের ছে‌লে। তি‌নি এক‌টি কোম্পানিতে চাকরি কর‌তেন ব‌লে জানা গে‌ছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, গাজীপুর মহানগরের পূর্ব এবং পশ্চিম থানাধীন স্টেশন রোড, টঙ্গী বাজার, কলেজগেট, মিলগেইট, চেরাগআলী এলাকায় প্রতিদিনই ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। গত তিনমাসে ছিনতাইকারীর হামলায় আনুমানিক ৩৫/৪০জন আহত হয়েছেন এবং নিহতের ঘটনাও আছে। ব্যবসায়ীরা বলেন, আহত বা নিহত হলেই গণমাধ্যম গুলোতে আসে বিষয়টি। এ ছাড়াও প্রতিদিন যারা ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছেন তা অজানাই থেকে যাচ্ছে। তারা আইন শৃঙ্কলা পরিস্থিতি নিয়ে অসন্তুষ প্রকাশ করেন।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, নিদিষ্ট এ জায়গা গুলোতে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে থাকলেও প্রশাসনের তেমন কোন নজরদারী চোখে পড়ে না। তারা পুলিশের ভুমিকা নিয়েও প্রশ্ন ‍তুলেন।

এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও‌সি) মো. কামাল হো‌সেন সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন,  গত এক মাসে ১৫/২০ জন ছিনতাইকারীকে অভিযান পরিচালনা করে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

তিনি জানান, ছিনতাই রোধে পুলিশের দুটি মোবাইল টিম উল্লেখিত এলাকায় কাজ করছে। ছিনাতাই রোধে টহল ব্যবস্থা আরোও জোরদার করার পরিকল্পনাও রয়েছে তাদের বলে জানান তিনি।

ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নিহত কামরুল ইসলামের বিষয়ে ওসি কামাল বলেন, রা‌তে সি‌লেট থে‌কে টঙ্গী কলেজগেট এলাকায় আ‌সেন কামরুল ইসলাম। প‌রে ভোরে ‌ছিনতাইকারীরা তা‌কে ছু‌রিকাঘাত ক‌রলে ঘটনাস্থ‌লেই তার মৃত্যু হয়। খবর পে‌য়ে পু‌লিশ মর‌দেহ উদ্ধার ক‌রে। পরে মর‌দেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মে‌ডি‌ক্যাল ক‌লেজ হাসপাতাল ম‌র্গে পাঠা‌য়। নিহ‌ত ব্যক্তির উরু‌তে ধারা‌লো অ‌স্ত্রের আঘা‌তের চিহ্ন র‌য়ে‌ছে।

এ ব্যাপা‌রে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হ‌চ্ছে বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।