• আজ ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

যৌন উত্তেজক বড়ি না খাওয়ায় স্ত্রীকে সিগারেটের ছ্যাঁকা

১২:৫৬ অপরাহ্ণ | শনিবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ দেশের খবর, রাজশাহী

সময়ের কণ্ঠস্বর, বগুড়া- যৌন উত্তেজক বড়ি সেবন না করায় বগুড়ার ধুনট উপজেলায় এক গৃহবধূর মুখ বেঁধে শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়েছে তার পাষণ্ড স্বামী। তিনি উপজেলার ভাণ্ডারবাড়ি ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর-দোয়াতপাড়া গ্রামের সবুজ হোসনের স্ত্রী।

তিনি ও তাঁর স্বামী দুজনই গাজীপুরে একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। আহত অবস্থায় ওই গৃহবধূকে গত বৃহস্পতিবার রাতে ধুনট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ওই গৃহবধূর বাবার বাড়ি ধুনট পৌর এলাকায়। প্রায় পাঁচ বছর আগে তাঁর বিয়ে হয়। তাঁদের একটি মেয়েসন্তান আছে। বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রী মিলে গাজীপুরের জিরানি এলাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি নেন। সেখানে তাঁরা ভাড়া বাসায় বাস করেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই গৃহবধূ বলেন, প্রায় দুই মাস ধরে তাঁর স্বামী তাঁকে একধরনের বড়ি কিনে সেবন করিয়ে আসছিলেন। ওই ওষুধ সেবন করলে শরীর সুস্থ থাকবে বলে তাঁকে জানানো হয়। পরে ওই ওষুধের বিষয়ে তাঁর মনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে তিনি কৌশলে জানতে পারেন, ওই বড়ি হলো যৌন উত্তেজক ওষুধ।

এ নিয়ে গত বুধবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে তাঁর মুখ বেঁধে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জ্বলন্ত সিগারেটের ছ্যাঁকা দেন ও মারধর করেন তাঁর স্বামী। নির্যাতন সইতে না পেরে তিনি গাজীপুর থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে ধুনটে বাবার বাড়িতে ফিরে আসেন। পরে পরিবারের সহযোগিতায় তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন।

এ বিষয়ে স্বামী সবুজ হোসেন বলেন, অবাধ্য স্ত্রীকে চড়থাপ্পড় মেরে শাসন করেছি। তার শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকা দেওয়া হয়নি। বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে যৌন উত্তেজক বড়ি কিনে ঘরে রেখেছিলাম। কিন্ত এই বড়ি তাকে সেবন করানো হয়নি। সে অভিমান করে বাবার বাড়িতে গিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রিপন কুমার বলেন, মেয়েটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে আগুন দিয়ে ছ্যাঁকা দেওয়ায় ফোসকা পড়েছে। তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সংবাদ পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেয়েটির চিকিৎসার খোঁজখবর নিয়েছি। মেয়েটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে পুড়ে ফোসকা পড়ার চিহ্ন রয়েছে। এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Loading...