সংবাদ শিরোনাম
৭২ ঘণ্টার মধ্যে আতিকুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ | ‘কেউ একজন আমাকে ঘৃণা করে’ আত্মহত্যার আগে কিশোরের ফেসবুক পোস্ট | ‘শুধুমাত্র প্রথম শ্রেণিতে কোটা বাতিল জাতির সঙ্গে প্রতারণা’- ভিপি নুর | ইসরাইলের বিপক্ষে খুতবা দেয়ায় আল আকসার খতিব বরখাস্ত | ‘দেশের গণমাধ্যম অবাধ স্বাধীনতা ভোগ করছে’- তথ্যমন্ত্রী | সংসদে বানরের জন্য অর্থ বরাদ্দ চাইলেন শাজাহান খান | মোদি সরকারের বিরুদ্ধে কলকাতায় ৩ দিনের গণ-অবস্থান কর্মসূচি | লিবিয়ায় যুদ্ধ বন্ধ করে শান্তি প্রতিষ্ঠায় একমত বিশ্বনেতারা | ইরান ইস্যুতে মার্কিন নীতির নিন্দা জানালো জার্মানি | স্কুল সভাপতির নির্দেশে শেরপুরে কোচিং বাণিজ্য জমজমাট |
  • আজ ৮ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে গুলি করে হত্যা

১১:১৪ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৯ প্রবাসের কথা

প্রবাসের কথা ডেস্ক- যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানার ব্যাটন রুজে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। শনিবার স্থানীয় সময় সকালে লুইজিয়ানার বিমানবন্দর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শনিবার স্থানীয় সময় সকালে লুইজিয়ানার বিমান বন্দর হাইওয়ের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম মো. ফিরোজ উল আমিন (৩০)। তিনি লুইজিয়ানা স্টেস্ট ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে পিএইচডি করছিলেন। বাংলাদেশে থাকাকালে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সিএসই-তে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় একটি গ্যাস স্টেশনে ক্লার্ক হিসেবে কাজ করতে মো. ফিরোজ-উল-আমিন। শনিবার সকালে সেখানে এক ডাকাতি সংঘটিত হয়। একদল দুর্বৃত্ত হঠাৎ গ্যাস স্টেশনটিতে ঢুকে পিস্তল নিয়ে গুলি ছুড়তে থাকে। ওই সময় গুলি লেগে ঘটনাস্থলেই ফিরোজুলের মৃত্যু হয়।

তার পিএইচডি অধ্যাপক তৃতীয় গোল্ডেন জি রিচার্ড বলেন, সে খুবই ভালো ছাত্র ছিল। খুব বন্ধুত্বপূর্ণ এবং দুর্দান্ত মানুষ ছিল। তিনি জানান, বিয়ের জন্য আসন্ন শীতে বাংলাদেশে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল ফিরোজের। বিয়ের পর স্ত্রীকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়ারও পরিকল্পনা ছিল তার।

এদিকে ফিরোজের মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন লুইজিয়ানা স্টেস্ট ইউনিভার্সিটির প্রেসিডেন্ট এফ কিং আলেক্সান্ডার।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ফিরোজ উল আমিনের মর্মান্তিক মৃত্যুতে পুরো লুইজিয়ানা স্টেস্ট ইউনিভার্সিটি শোকাহত। সে ছিল অবিশ্বাস্য রকমের একজন মেধাবী ছাত্র ও গবেষক; যার একটি সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ ছিল।

Loading...