কাশ্মীরের চাষীদের কাছ থেকে সরাসরি আপেল কিনবে ভারত সরকার

৮:২৯ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯ আন্তর্জাতিক
kashmiri-apple

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ায় বিশেষ সুবিধা হারিয়েছে উপত্যকা। এহেন পরিস্থিতিতে যাতে কাশ্মীরের আপেল বিক্রেতারা কাশ্মীরের বাইরে তা বিক্রি না করে তার জন্য সরাসরি হুমকি দিয়েছিল বিভিন্ন সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলি।

আর পাল্টা ব্যবস্থা নিয়ে ভারত সরকার  এবার কাশ্মীরের আপেল বিক্রেতাদের সহায়তা করার জন্য সরকার পরিচালিত ন্যাশানাল এগ্রিকালচার কো অপারেটিভ মার্কেটিং ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ার(এনএফইডি)-কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে চাষিদের কাছ থেকে আপেল সংগ্রহ করার এবং গোটা প্রক্রিয়া ডিসেম্বরের পনেরো তারিখের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এর মূল উদ্দেশ্য উপত্যকার চাষিদের সুবিধা দেওয়া।

এই গোটা প্রক্রিয়া আপেল চাষি এবং রাজ্য প্রশাসনের মধ্যে সরাসরি করা হবে এবং চাষিদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ডিরেক্ট বেনিফিট ট্রান্সফার( ডিবিটি) এর মাধ্যমে তাদের প্রাপ্য টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে। জম্মু ও কাশ্মীরের বিভিন্ন জেলায় বিভিন্ন ধরনের আপেল উৎপাদন হয় ৷ সোপরে, সোপিয়ান, এবং শ্রীনগরের পাইকারী বাজার থেকে সংগ্রহ করা হবে বলে সরকারী তরফে জানানো হয়েছে। এই বিভিন্ন ধরনের আপেলের সঠিক দাম একটি কমিটির ঠিক করবে এবং সেই কমিটিতে জাতীয় হর্টিকালচার বোর্ডের একজন সদস্য থাকবেন। তারাই গুণগত মানের ভিত্তিতে দাম ঠিক করবে৷

গোটা বিষয়টির নজরদারি করবেন জম্মু কাশ্মীরের মুখ্যসচিব ও কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রদফতর ও অন্যান্য কেন্দ্রীয় সংগঠনগুলি বলে জানানো হয়েছে।

ভারতের জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা অজিত দোভাল শনিবার জানিয়েছেন ৭৫০ ট্রাক উপত্যকা থেকে আপেল সংগ্রহ করে দেশের অন্যান্য জায়গাতে বিক্রি করা হবে।পাকিস্তানী জঙ্গি সংগঠনের আদেশ অমান্য করার ফলে গত শুক্রবার দুজন সন্ত্রাসবাদী সোপোরের এক ফল ব্যবসায়ীর পরিবারের উপর আক্রমন করে সেই আক্রমনের ফলে বিক্রেতার পঁচিশ বছর বয়সী ছেলে এবং আড়াই বছর বয়সী নাতনী আহত হয়।

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পর থেকেই কাশ্মীরের সাধারণ জনজীবন ব্যাহত হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছিল সকল যোগাযোগ মাধ্যম। যদিও তার পরে কাশ্মীরের কিছু জায়গা থেকে এই নির্দেশিকা তুলে নেওয়া হয়েছিল৷  তারপরেও কাশ্মীরের স্কুল কলেজ এবং অন্যান্য জায়গায় উপস্থিতির হার ছিল বেশ কম।