সংবাদ শিরোনাম
স্পেনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালন | অবশেষে ব্রাজিলে ফিরতে পারছেন রোনালদিনহো | কারাগার থেকে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি নিখোঁজ: আরও দুজন সাময়িক বরখাস্ত | প্রথমবারের দেশের বাজারে এলো ‘টু সিরিজ গ্র্যান কুপ’ বিএমডব্লিউ | শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ, শ্রীমঙ্গলে মা-বাবার পাহারায় ঘরে বসে ‘সততা’ পরীক্ষা | গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদ সদস্য মন্নু করোনায় আক্রান্ত | থানায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় মিরপুরের ৬ পুলিশ কর্মকর্তা বদলি | জীবনসঙ্গিনী খুঁজে নিলেন চাহাল | এবার ১২০০ কোটি রুপি ব্যয়ে আকাশছোঁয়া ‘হনুমানের মূর্তি’ তৈরি হচ্ছে ভারতে | লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা বৃদ্ধি, আবারো চীনা সেনা মোতায়েনের দাবি ভারতের |
  • আজ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ঘুষ ও দুর্নীতিমুক্ত নিয়োগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ধন্যবাদ পেল পুলিশ

৩:২১ অপরাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯ জাতীয়
hasinan

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বাংলাদেশ পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষা ঘুষ ও দুর্নীতিমুক্ত করে পুলিশ বাহিনী দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে জন্য তিনি পুলিশ বাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কমিউনিটি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিবিবিএল) উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি পুলিশকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ দেব, সাধারণত পুলিশের লোক নিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের একটা দুর্নাম রয়েছে। পুলিশে নিয়োগের ক্ষেত্রে ঘুষ-দুর্নীতির বদনাম আছে। কিন্তু পুলিশ সম্প্রতি নিয়োগে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

তিনি বলেন, ঘুষ-দুর্নীতিমুক্তভাবে যেভাবে এবার নিয়োগ হয়েছে, অতি সাধারণ দরিদ্র পরিবারের ছেলে-মেয়েরাও পুলিশে চাকরি পেয়েছে। প্রতিটি জেলায়-উপজেলায় এ নিয়োগের দায়িত্বপ্রাপ্তরা অত্যন্ত সততা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছে। তারা বিশেষ দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেছে। এটা সকলকেই অনুসরণ করতে হবে, যাতে সাধারণ মানুষগুলো চাকরির সুযোগ পায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে পুলিশের ওপর মানুষের আস্থা ও বিশ্বাসের জায়গা সৃষ্টি হয়েছে। আমরা ইতোমধ্যে কনস্টেবল থেকে এসআই পর্যন্ত ঝুঁকি ভাতা চালু করেছি। দেশের ‘অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ’ কাজগুলো পুলিশকে করতে হয়। তাই পুলিশের জন্য যেখানে যতটুকু কাজ করা দরকার আমরা করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, তাদের (পুলিশ) জন্য গাড়ি, মোটরসাইকেল, এমনকি চাকরিতে পদোন্নতির ব্যবস্থা করে দিয়েছি। পাশাপাশি সার্বিকভাবে সকলের বেতন আমরা বৃদ্ধি করেছি। একসঙ্গে একবারে এত বেতন বৃদ্ধি পৃথিবীর কোথাও নেই, আমরা পুলিশ বাহিনীর জন্য সেটা করে দেখিয়েছি।

শেখ হাসিনা বলেন, আগে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালনের সময় নিহত হলে সামান্য কিছু টাকা সাহায্য দেয়া হতো। তাদের সাহায্য বৃদ্ধির জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে কল্যাণ ট্রাস্টের প্রস্তাব এসেছিল। আমরা ট্রাস্ট করে দিয়েছি। ট্রাস্টে উপার্জনের জন্য কী প্রয়োজনীয় সেই বিষয়ে কিছু সুবিধা আমি করে দিয়েছিলাম। আমরা সশস্ত্র বাহিনীর জন্য ব্যাংক দিয়েছি, বিজিবি জন্য দিয়েছি। পুলিশ বাহিনী বাকি ছিল তাদেরও ব্যাংক করে দিলাম।

বক্তব্যের পর প্রধানমন্ত্রী কমিউনিটি ব্যাংকের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীনসহ পুলিশ ও ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Skip to toolbar