ভাসুরের সাথে শিক্ষিকার অনৈতিক সম্পর্কের ভিডিও ভাইরাল, থানায় ধর্ষণ মামলা

১২:১৫ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯ ঢাকা
Monshigonj

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:  মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে আপন ভাসুরের সাথে এক স্কুল শিক্ষিকার অনৈতিক সম্পর্কের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর ওই শিক্ষিকা বাদী হয়ে ভাসুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও পর্ণগ্রাফী আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

গত বুধবার রাতে তিনি শ্রীনগর থানায় মামলাটি দায়ের করেণ। এর আগে ভাইরালের বিষয়টি উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় উত্থাপিত হলে শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাহিদুল ইসলাম প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

এর পর থেকে ওই শিক্ষিকা বিদ্যালয়ে অনুপুস্থিত রয়েছেন। শিক্ষিকার বিদ্যালয়ে অনুপুস্থিতির বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলছেন তাকে ১৫ দিনের বাধ্যতামূলক ছুটি প্রদান করা হয়েছে। তবে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার জান্নাতুল ফেরদৌস বলছেন ছুটি সংক্রান্ত বিষয়টি তিনি জানেননা।

শ্রীনগর থানার ওসি (তদন্ত) হেলালউদ্দিন জানান, শিক্ষিকার অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা গ্রহন করে বৃহস্পতিবার তাকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

শ্রীনগর উপজেলার হাঁসাড়ার একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকার প্রবাসী স্বামীর বড় ভাই জাকিরের সাথে অনৈতিক সম্পর্কের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ এলাকার বিভিন্ন লোকের মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে পরে। ভিডিওটি ভাইরালের পর পরই তাদের নিয়ে সামাজিক ভাবে বিরুপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়। স্থানীয়রা ওই শিক্ষিকা ও তার ভাসুরের বিচার দাবী করেন।

ঘটনাটি নিয়ে উপজেলা জুরে আলোচনা শুরু হলে ওই শিক্ষিকা তার ভাসুরের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। তবে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষিকা সহ অন্যান্য শিক্ষকরা বলেন, একই বিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসাবে এমন জঘন্য বিষয়টি নিয়ে তারা বিব্রত।

ওই শিক্ষিকার আরেক ভাসুর মোঃ রিপন জানান, বিষয়টি নিয়ে তারা পারিবারিক ভাবে সালিশে বসে ছিলেন। পরিবারের মান সম্মানের কথা চিন্তা করে তারা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন।

হাসাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোলায়মান খান বলেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। শিক্ষিকা যেহেতু সরকারী চাকরী করেন সেহেতু তার দপ্তরই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে।

শ্রীনগর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, শিক্ষিকা ভাইরাল হওয়া ভিডিওর বিষয়ে স্বীকার করেছেন। বিষয়টি উর্ধতন কতৃপক্ষকে লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে।