• আজ ৩রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ধর্ষকের শাস্তির দাবিতে নন্দীগ্রামে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন, কুশপুত্তলিকা দাহ

৯:৩৮ অপরাহ্ণ | রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯ রাজশাহী
DAHO

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার মাজগ্রাম এমএ সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে এবং ওই মাদরাসার দপ্তরি ধর্ষক আলমগীর হোসেন বাবলুর শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও তার কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষকার্থীসহ এলাকাবাসী।

রবিবার দুপুরে মাদরাসা চত্বরে ঘন্টা ব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এ সময় মানববন্ধনে অংশ গ্রহণকারীরা ধর্ষক বাবলুর শাস্তির দাবিতে শ্লোগান দেয়। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা বাবলুর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার একরামুল হক, মাজগ্রাম এমএ সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আইয়ুব আলী, আওয়ামী লীগ নেতা একরাম হোসেন, সমাজ সেবক হাফিজুর রহমান, আমজাদ হোসেন, আব্দুস সালাম, অপিল উদ্দিন, শিক্ষার্থী নাঈম, সাকিব আল হাসানসহ দুই শতাধিক শিক্ষার্থী।

উল্লেখ্য, গত শনিবার দুপুরে মাজগ্রাম এমএ সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার তৃতীয় শ্রেনীর এক ছাত্রী বাবলুর বাড়ির পাশ দিয়ে মাদরাসায় যাচ্ছিল। এ সময় বাবলু তাকে মিষ্টি খাওয়ার কথা বলে বাড়ি ভিতর ডেকে নিয়ে যায়। এরপর শয়ন ঘরের ভিতরে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে বাড়িতেই আটকে রাখে। এসময় শিশুটির চিৎকার করলে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে ধর্ষনের ঘটনা জানার পর বাবলুকে আটক করে গনধোলাই দেয় স্থানীয়রা। এরপর পুলিশ খবর পেয়ে বাবলুকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

মাজগ্রাম এমএ সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আইয়ুব আলী জানান, যে কর্মচারী নিরাপত্তা দিতে পারে না সে কর্মচারী এ প্রতিষ্ঠানে প্রয়োজন নেই। সেই সাথে দপ্তরি আলমগীর হোসেন বাবলুর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। তিনি আরও জানান, তার বরখাস্তের বিষয়ে মাদরাসা অধিদপ্তরে আবেদন করা হবে।

নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শওকত কবির জানান, ধর্ষণকারীর বিরুদ্ধে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছে।