• আজ ৩রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিততে কষ্ট তো হবেই’

১১:২৬ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ খেলা
shakib_pc

স্পোর্টস আপডেট ডেস্কঃ ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে বেশ বাজে ভাবে হেরেছে বাংলাদেশ। সবশেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজেও আফগানদের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল সাকিবের দল।

দলে সাকিব, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহর মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রয়েছেন। পাশাপাশি লিটন-সৌম্যের মতো পরীক্ষিত তরুণ ক্রিকেটার রয়েছেন। দলের এমন শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপ যখন ১৬৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে অসহায় আত্মসমর্পণ করে, তখন আত্মবিশ্বাস নিয়ে প্রশ্ন উঠবেই।

৩২ রান তুলতেই ড্রেসিংরুমের পথ ধরেছেন টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যান। মিডল অর্ডার, লোয়ার মিডল অর্ডারের অবস্থাও তথৈবচ। একমাত্র মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (৩৯ বলে ৪৪) ছাড়া আর একজন ব্যাটসম্যাও বড় লক্ষ্য তাড়ার এই ম্যাচে রশিদ খান, মুজিব উর রহমানদের ওপর চোখ রাঙাতে পারেননি। এতে সর্বনাশও যা হবার হয়েছে। এক বল বাকি থাকতেই গুটিয়ে গেছে ১৩৯ রানে। ফলে ২৫ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

বিষয়টি নিদারুণ ব্যথাতুর করে তুলেছে সাকিব আল হাসানের ক্রিকেটীয় সত্বা। সতীর্থদের এমন অপরিনামদর্শী ব্যাটিং দেখে তার মনে হয়েছে, ম্যাচটি তারা আফগানদের উপহার দিয়ে এসেছেন।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) ম্যাচ শেষে রাজধানীর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সম্মেলন কক্ষে এসে এভাবে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটালেন এই টাইগার দলপতি।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান সেটাই অকপটে স্বীকার করে নেন। সাকিব বলেন, আমার মনে হয়, দলে আত্মবিশ্বাসের অভাব রয়েছে। এর কারণেই এমনটা হচ্ছে। আর আত্মবিশ্বাসের অভাব রয়েছে বলেই ব্যাটসম্যানের মাইন্ডসেটও পরিষ্কার নয়, তারা কী করবে। দুটো জিনিসই একটা আরেকটার পরিপূরক।

আফগানিস্তানের সঙ্গে ম্যাচটা জেতা দরকার ছিল বলে মনে করেন বাংলাদেশ দলপতি। উইকেটও ছিল ব্যাটিং সহায়ক। অধিনায়ক বলেন, যেটা দেরাদুনে হয়েছে, সেটা এখানেও হয়েছে- এটা প্রমাণ হয়ে গেলো। গত ম্যাচের উইকেটে ব্যাট করা কঠিন ছিল। কিন্তু, এই ম্যাচের উইকেটটা ব্যাট করার মতো ছিল। আমরা ম্যাচটা ওদের দিয়ে এসেছি। সুযোগটা নেওয়া দরকার ছিল, যেটা পারিনি।

সাকিব মনে করেন, টি-টোয়েন্টিতে আফগানিস্তান ভালো দল। আর ভালো দলের বিপক্ষে জিততে কষ্ট তো হবেই!