• আজ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

লিফট কিনতে সুইজারল্যান্ড-স্পেন সফরে যাচ্ছেন ভিসি ও শিক্ষকসহ ৯ জন!

৭:৩৭ অপরাহ্ণ | শনিবার, অক্টোবর ৫, ২০১৯ দেশের খবর, ময়মনসিংহ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রতিষ্ঠিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য লিফট কিনতে ইউরোপের দুটি দেশে যাচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিসহ নয়জন।

প্রাক চালান পরিদর্শন বা প্রি-শিপমেন্ট ইন্সপেকশন হিসেবে তারা ইউরোপের সুইজারল্যান্ড ও স্পেন সফর করবেন বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানিয়েছে।

সম্প্রতি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে নোটিস বোর্ডে বিদেশ সফরকারীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়। সেখানে ঢুঁ মেরে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. মো. হুমায়ুন কবির সুইজারল্যান্ড অ্যাম্বাসি বরাবর সেনজেন ভিসার জন্য আটজনের নামে পৃথক একটি করে এনওসি (নো অবজেকশন সার্টিফিকেট) দেন। তবে রেজিস্ট্রারের আবেদনে স্বাক্ষর করেন ডেপুটি রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ আনিসুর রহমান।

উল্লেখ করা হয়, প্রি-শিপপেমন্ট ইন্সপেকশনের জন্য চলতি মাসের ২০ থেকে ২৯ তারিখ পর্যন্ত ওই দুই দেশে সফরে থাকবেন তারা। এ সময় তাদের বিমান ভাড়া থেকে যাবতীয় ব্যয় বহন করবে ক্রিয়েটিভ ইঞ্জিনিয়ার্স।

যারা সফরে যাচ্ছেন তারা হলেন ভিসি প্রফেসর ড. এ এইচ এম মুস্তাফিজুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর মো. জালাল উদ্দিন, রেজিস্ট্রার ড. মো. হুমায়ুন কবির, প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান, পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) ইঞ্জিনিয়ার মো. হাফিজুর রহমান, সহকারী প্রধান ইঞ্জিনিয়ার মো. মাহবুবুল ইসলাম, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিংয়ের সহযোগী অধ্যাপক সোহেল রানা, কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. শাহাবুদ্দিন ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সুব্রত কুমার দে।

জানা গেছে, জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দুটি প্রকল্পের অধীনে ১০ তলা ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। যেখানে বিভিন্ন ভবনের জন্য সব মিলিয়ে ১৪টি লিফট কেনার কথা রয়েছে।

এখনও ভবন নির্মাণ শেষ না হলেও, আগাম লিফট কেনার জন্য উপাচার্য, ট্রেজারার, রেজিস্ট্রারসহ ৯ জন সুইজারল্যান্ড ও স্পেন সফরের প্রস্তুতি নেন। যেখানে সাতজনেরই নেই লিফট সম্পর্কে কোন কারিগরি জ্ঞান। যদিও সমালোচনার মুখে শেষ সময়ে বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার কথা বলছেন উপাচার্য।

তিনি বলেন, ‘আমি যাচ্ছি না। নয়জনের একটি টিম যাবে।’ তাহলে আপনার নামে কেন এনওসি ইস্যু করা হলো? এমন প্রশ্নে ভিসি বলেন, ‘আমার নামে কোনো এনওসি ইস্যু হয়নি। আপনি কোথায় দেখেছেন? আমি একটি মিটিংয়ে আছি।’

কারিগরি জ্ঞান না থাকার পরও, শিক্ষকদের লিফট কিনতে বিদেশ সফর হাস্যকর বলে মন্তব্য করেন শিক্ষা সমিতির নেতা রফিকুল আমিন। তিনি বলেন, অভিজ্ঞ লোক ছাড়া গেলে শুধু ঘোরাই হবে, লিফট কিনার উদ্দেশ্য সফল হবে না।

বিশ্বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এইচ এম মুস্তাফিজুর রহমানও স্বীকার করেছেন, অভিজ্ঞ লোক ছাড়া বিদেশ ভ্রমণ কোনভাবেই ঠিক নয়। তিনি বলেন, ৩জন ইঞ্জিনিয়ার আছেন আর বাকিরা অফিসিয়াল কমিটির সদস্য হিসেবে যাচ্ছে। বাংলাদেশের যেসব জায়গায় ইউরোপ থেকে লিফট কিনে থাকে সব জায়গায় একই নিয়ম রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্রদের মধ্যে চলছে কানাঘুষা। অনেকেই হিসাব কষছেন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ব্যয় বহন করলেও প্রতিষ্ঠানটির কী লাভ?

Loading...