কালকিনিতে ঘরের মেঝে গৃহবধূর লাশ, পরিবারের দাবি হত্যা

৫:৪০ অপরাহ্ণ | রবিবার, অক্টোবর ৬, ২০১৯ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মিলন, কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি- মাদারীপুরের কালকিনিতে শাহিনা বেগম (৩০) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

আজ রোববার বিকেল ৩টার দিকে নিহতের স্বামীর বাড়ির ঘরের মেঝে থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে নিহতের পরিবারের অভিযোগ তাকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত ওই গৃহবধু কালকিনি সোনালী ব্য্যাংকের হিসাব রক্ষক মাহাবুবুর রহমানের ছোট বোন।

নিহতের পরিবার ও এলাকা সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার সিডিখান এলাকার সিডিখান গ্রামের ফজলুল হক হাওলাদারের মেয়ে শাহিনার সঙ্গে শিকারমঙ্গল এলাকার ভবানিপুর গ্রামের হারুন পালয়ানের প্রায় এক বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে শাহীনাকে বিভিন্ন সময় শারীরিকভাবে নির্যাতন করে আসছে তার স্বামী হারুন।

কিন্তু আজ রোববার সকালে শাহিনার নিথর দেহ তার স্বামীর ঘরের মেঝেতে পরে থাকতে দেখেন স্থানীয় লোকজন। এ খবর পেয়ে কালকিনি থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করেন। পরে নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে প্রেরন করা হয়।

নিহতের বড় বোন জোসনা বেগম কান্না জরিত কন্ঠে বলেন, যৌতুকের জন্য আমার বোনকে তার স্বামী হারুন খালি বাড়িতে হত্যা করে ঘরের মেঝেতে ফেলে রেখেছে। আমরা তার দৃষ্টান্তমুলক বিচার চাই।

অভিযুক্ত স্বামী হারুন পালোয়ান বলেন, আমার স্ত্রী একা-একা ঘুমের মাঝে মাড়া গেছে। তাকে হত্যা করা হয়নি।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি তদন্ত হারুন অর রশিদ বলেন, কিভাবে সে মাড়া গেছে সঠিকভাবে বলতে পারবনা। তবে ময়না তদন্ত শেষে বলা যাবে কি ভাবে তার মৃত্যু হয়েছে।