বাংলাদেশের গোলকিপারই ম্যাচসেরা: ভারতের কোচ

৩:৫৭ অপরাহ্ণ | বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- চোখে চশমা, হেলে দুলে হাঁটা দেখলে মনে হয় সব সময় কী যেন ভাবছেন ! ভারতের ক্রোয়েশিয়ার কোচ ইগর স্টিমাচের মধ্যে একটা প্রফেসরসুলভ ভাব আছে। না শুধু চশমা আর ভাবুক দৃষ্টির জন্য না, দক্ষিণ এশিয়ান ফুটবলের মানদণ্ডে তাঁকে প্রফেসর বলাই যায়—যখন শুনবেন তাঁর অধীনেই ২০১৪ বিশ্বকাপে খেলেছিল ক্রোয়েশিয়া।

বিশ্বকাপে দল নিয়ে যাওয়া ভারতের এই কোচই আজ বাংলাদেশকে জানালেন অভিনন্দন । বাংলাদেশ যে তাঁর মন জয় করে নিয়েছে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ভরা মজলিশে তা জানিয়ে দিলেন, ‘বাংলাদেশকে অভিনন্দন। তারা দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছে। খুবই রোমাঞ্চকর একটি ম্যাচ ছিল। এটাই ফুটবলের সৌন্দর্য। আমি অতীতে ম্যাচে মাঠে ছিলাম। এই ম্যাচটা আমার জীবনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’

ভারত বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও তা প্রতিহত হয়েছে বাংলাদেশের গোলকিপার আশরাফুল ইসালাম রানার অসাধারণ নৈপুণ্যে। ম্যাচের পর রানার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ স্টিমাচ বললেন, ‘দর্শকরা খেলা উপভোগ করেছেন। আমরা খুশি নই। প্রচুর সুযোগ তৈরি হয়েছে কিন্তু আমরা গোল করতে পারিনি। আমার মতে বাংলাদেশের গোলকিপারই ম্যাচ সেরা।’

ভারতের কোচ অবশ্য আগেই সতর্ক করে দিয়েছিলেন বাংলাদেশকে নিয়ে। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, এদিন আমরা খুব বাজে গোল হজম করেছি। এভাবে গোল খেলে জেতার আশা না করাই ভালো। জানতাম ৯ জন মিলে বাংলাদেশের রক্ষণ সামলাবে। গোল করা কঠিন হবে। ছেলেদের সেটা বলেও দিয়েছিলাম। তবু কাজের কাজ হয়নি।

স্তিমাচ বলেন, প্রথমার্ধে আমরা আক্রমণাত্মক কিংবা আগ্রাসী ফুটবল খেলতে পারিনি। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য গুছিয়ে উঠেছিলাম। তবু পুরো স্বার্থ হাসিল হয়নি। শেষ পর্যন্ত সুযোগ নষ্টের মাসুল গুনতে হয়েছে।

ভারতের মাটিতে কখনো জেতেনি বাংলাদেশ। আজ সেই অধরা জয়ের দেখা মিলতে পারত। প্রথমার্ধের ৪২ মিনিটে সাদ উদ্দিনের গোলে এগিয়ে থাকার ব্যবধান পুঁজি করে ম্যাচের প্রায় শেষ পর্যন্তও জয়ের সুবাস পাচ্ছিল বাংলাদেশ। ৮৮ মিনিটে হৃদয় ভঙ্গ। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার দুই মিনিট আগে হেডে সমতাসূচক গোলটি করেন ভারতের আদিল খান। এতেই ১ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারে স্বাগতিকেরা।

Loading...