ছেলের সহপাঠীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়া শিক্ষক গ্রেফতার

২:৩৬ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯ রাজশাহী
am

রাজিব আহমেদ, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে ছেলের সহপাঠীকে নিয়ে অজানার উদেশ্যে পারি জমানো শিক্ষক নাজমুল ইসলাম কেটুকে (৩৬) গ্রেফতার করেছে শাহজাদপুর থানা পুলিশ। গত বুধবার বিকালে বগুড়া জেলার শেরপুর থেকে স্কুল ছাত্রী লাবনী আক্তার (১৪) কে উদ্ধার ও তাকে গ্রেফতার করা হয়।

জানা যায়, গত ১২ অক্টোবর শাহজাদপুর উপজেলার নরিনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারি ও কাম শিক্ষক নাজমুল ইসলাম (৩৬) একই স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্রী লাবনী আক্তার (১৪)কে নিয়ে অজানার উদ্দশ্যে পাড়ি জমায়।

লাবনী আক্তার উল্লাপাড়া উপজেলার শলপ ইউনিয়নের নওকৈর গ্রামের গার্মেন্টসকর্মী দম্পতী নায়েব আলীর মেয়ে। সে শাহজাদপুরের নরিনা গ্রামে নানা সাইদুল ইসলামের বাড়ীতে থেকে লেখাপড়া করছিল।

নানার বাড়ীতে থাকাকালীণ নরিনা উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়ার পাশাপাশি অফিস সহকারি নাজমুল হোসেন কেটু লাবনীকে বাড়িতে প্রাইভেট পড়াতো। এরই এক পর্যায়ে নাজমুলের সাথে লাবনীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। শুধু তাইনা শিক্ষক নাজমুলের বড় ছেলের ঘনিষ্ঠ বান্ধুবী লাবনী। কারণ নাজমুলের বড় ছেলের সাথে লাবনী ওই স্কুলে একই ক্লাসে পড়ে।

শাহজাদপুর থানা সূত্রে জানা যায়, লাবনী আক্তারের পিতা মোঃ নায়েব আলী গত ১৫ অক্টোবর শিক্ষক নাজমুল ইসলাম কেটু সহ ৫ জনকে আসামি করে শাহজাদপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা করে। এরই প্রেক্ষিতে মামলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজাদপুর থানার (ওসি অপারেশন এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং) মোঃ আসলাম হোসেনের নেতৃত্বে বগুড়া জেলার শেরপুর থেকে ছাত্রী লাবনী আক্তার কে উদ্ধার ও শিক্ষক নাজমুল ইসলাম কেটুকে গ্রেফতার করে।

গতকাল অপহরণ মামলায় শিক্ষক নাজমুল ইসলাম কেটুকে শাহজাদপুর কোর্টে প্রেরণ করলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। এবং স্কুলছাত্রী লাবনী আক্তার কে তার বাবা মায়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

Loading...