• আজ ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মুসলমান হয়ে কীভাবে নবী করিম (সা.) নিয়ে বাজে কথা লিখে? প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

৯:৫১ অপরাহ্ণ | রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯ জাতীয়
HASINA

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে দেখে নানা ধরনের চক্রান্তমুলক ঘটনা ঘটানো হচ্ছে এবং ভোলার বোরহানউদ্দিনের ঘটনাও তেমনই একটি চক্রান্ত। রোববার (২০ অক্টোরব) গণভবনে আওয়ামী যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক-পূর্ব সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভোলার বোরহানউদ্দিনে একটি হিন্দু ছেলের ফেসবুকের আইডি হ্যাক করে তার নামে কতগুলো মিথ্যাচার করা হয়েছে, যার ফেসবুক হ্যাক করা হয়েছে তার কাছে আবার ফোন করে ২০ হাজার টাকাও চেয়েছে। ২০ হাজার টাকা না দিলে তার ফেসবুক আইডিতে এমন কিছু কথা লিখবে সেটা তার জন্য ক্ষতি হবে- এ কথা শোনার পর পরই ওই হিন্দু ছেলেটি পুলিশ স্টেশনে গেছে। সে সেখানে একটা জিডিও করেছে।

তিনি বলেন, জিডি করা সত্ত্বেও সেখানে তাকে কিন্তু পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সাথে সাথে যে টেলিফোন করেছিল তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। ফেসবুক আইডি হ্যাকিং হলে ফেসবুক অপারেটরদের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করেছি। তাদের কাছ থেকে আমরা পুরো তথ্য জোগাড় করতে পারব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেখানে যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে; যারা ফেসবুকে ওই হিন্দু ছেলেটির আইডি হ্যাকিং করে টাকা চেয়ে না পেয়ে যে কথাগুলো লিখেছে, সে তো একজন মুসলমান ছেলে। একজন মুসলমান হয়ে কীভাবে নবী করিম (সা.) নিয়ে এ ধরনের বাজে কথা লিখে? এবং আরেকজনকে জড়ানোর চেষ্টা করতে পারে? সেই কথা ধরে সেখানকার লোক একজন পীর সাহেব আছেন বেশ কিছু লোককে সে জড়ো করে। যখন পুলিশ তাদের বোঝাচ্ছে আপনারা এগুলো করবেন না, আমরা গ্রেফতার করেছি, আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি, তখন পুলিশের ওপর তারা চড়াও হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, পুলিশের ওপর চড়াও হলে পুলিশ নিজেদের বাঁচানোর জন্য একটা ঘরে আশ্রয় নেয়। আশ্রয় নেয়ার পরও তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এর মধ্যে তিনজনের মৃত্যু কনফার্ম বলা হয়েছে আরেকজনের অবস্থা মুমূর্ষ।

শেখ হাসিনা বলেন, কেউ যদি সত্যিকার ইসলাম ধর্মে বিশ্বাস করে। যদি নবী করিমের (সা.) প্রতি এতটুকু সম্মান থাকে তাহলে আরেকজনের ক্ষতি করার জন্য এ ধরনের জঘন্য কথা কীভাবে লেখে? এটাও আমার একটা প্রশ্ন।

তিনি আরও বলেন, দেশবাসীর কাছে আমার একটাই আহ্বান থাকবে, সবার ধৈর্য ধরতে হবে। কেউ যদি আমাদের নবী করিমের (সা.) বিরুদ্ধে কিছু লিখে থাকে নিশ্চয়ই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যের ক্ষতি করার জন্য যারা এ ধরনের কথা লিখবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Loading...