• আজ ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জনপ্রিয় নায়ক শাকিব-জিৎ, নায়িকা ঋতুপর্ণা-জয়া

১২:৩৪ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক- প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস (বিবিএফএ)’-এর আসর। সোমবার সন্ধ্যায় বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারের নবরাত্রী মিলনায়তনে শুরু হয় দুই বাংলার চলচ্চিত্রের এই অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান। আয়োজনটি শেষ হয় প্রায় রাত ২টায়।

ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া ও বসুন্ধরা গ্রুপের উদ্যোগে এ পুরস্কার অনুষ্ঠানটি নিবেদন করেছে টিএম ফিল্মস। দুই বাংলার চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের এ মহাসম্মেলনের মাধ্যমে কাজের স্বীকৃতি জানানো হয় চলচ্চিত্রজনদের। অনুষ্ঠানে জনপ্রিয় নায়ক-নায়িকা হিসেবে পুরস্কার পেয়েছেন চিত্রনায়ক শাকিব খান ও জয়া আহসান এবং ভারতের জিৎ ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত।

জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দি‌য়ে শুরু হয় এই আ‌য়োজন। এরপর দেখানো হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র। প্রদান করা হয় আজীবন সম্মাননা। চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদান রাখায় বাংলাদেশের কিংবদন্তি অভিনেত্রী আনোয়ারা বেগম ও ভারতের কিংবদন্তি অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিককে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়।

আজীবন সম্মাননায় ভূষিত হয়ে আনোয়ারা বেগম বলেন, ‘এ ধরনের একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ। দুই বাংলা মিলিয়ে এত এত তারকা থাকতে আমাকে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হবে এটা আমি কখনো ভাবিনি।’

রঞ্জিত মল্লিক বলেন, ‘২২ কোটি মানুষ বাংলা ভাষায় কথা বলে। তাদেরই এ আয়োজন প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ আয়োজন যেন ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে পারে। যৌথভাবে সিনেমা নির্মাণের যে প্রয়াস চলছে, তা যেন আরও বেগবান হয়। আরেকটা কথা না বললেই নয়, আমি পৃথিবীর বহু দেশে ঘুরেছি, কিন্তু বাংলাদেশে আসলে যে আতিথেয়তা পাই তা পৃথিবীর আর কোথাও পাই না।’

অনুষ্ঠানে জনপ্রিয় নায়িকা ক্যাটাগরিতে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত (ভারত) ও জয়া আহসান (বাংলাদেশ) পুরস্কার পেয়েছেন। আর জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছেন শাকিব খান (বাংলাদেশ) ও জিৎ (ভারত)।

এ আসরে সেরা ছ‌বি হি‌সে‌বে নির্বা‌চিত হ‌য়ে‌ছে বাংলাদেশের ‘দেবী’ ও ভারতের ‘নগর কীর্তন’ ছ‌বি‌টি। জনপ্রিয় ছ‌বি হ‌য়ে‌ছে বাংলাদেশের ‘পাসওয়ার্ড’ ও ভারতের ‘ব্যোমকেশ গোত্র’।

শ্রেষ্ঠ পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশের নাসির উদ্দিন ইউসুফ ও ভারতের সৃজিত মুখার্জি। এছাড়া সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন বাংলাদেশের জয়া আহসান ও ভারতের পাওলি দাম। সেরা অভিনেতা বাংলাদেশের সিয়াম আহমেদ ও ভারতের প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

অনুষ্ঠানে সেরা চিত্রনাট্যকার পুরস্কারে ভূষিত হন বাংলাদেশের ফেরারী ফরহাদ ও ভারতের পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। সেরা চিত্রগ্রাহকের পুরস্কার পান বাংলাদেশের কামরুল হাসান খসরু ও ভারতের সৃজিত মুখার্জি।

ভিডিও এডিটর হিসেবে বাংলাদেশের তৌহিদ হোসেন চৌধুরী ও ভারতের সংলাপ ভৌমিক পুরস্কার পান। সেরা সংগীত পরিচালক বাংলাদেশের হৃদয় খান ও ভারতের বিক্রম ঘোষের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশের সেরা গায়ক (পুরুষ) ইমরান মাহমুদুল ও ভারতের অনির্বাণ ভট্টাচার্য। সেরা গায়িকা (নারী) বাংলাদেশের পক্ষে যৌথভাবে সোমনুর মনির কোনাল ও ফাতেমাতুজ জোহরা ঐশী এবং ভারতের নিকিতা নন্দী।

সেরা পার্শ্ব-অভিনেতা বাংলাদেশের ইমন মাহমুদুল ও ভারতের অর্জুন চক্রবর্তী। সেরা পার্শ্ব-অভিনেত্রী বাংলাদেশের জাকিয়া বারী মম ও ভারতে সুদীপ্তা চক্রবর্তী। বিশেষ জুরি পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের তাসকিন রহমান ও বিদ্যা সিনহা মীম এবং ভারতের রুদ্র নীল রায় ঘোষ ও আবীর চ্যাটার্জি ও নবনী।

এ পুরস্কারে বাংলাদেশ ও ভারতের পক্ষ থেকে জুরি কমিটিতে ছিলেন পাঁচজন করে মোট দশজন বিশেষজ্ঞ। বাংলাদেশ থেকে জুরি বোর্ডের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন- আলমগীর, সারাহ বেগম কবরী, ইমদাদুল হক মিলন, খোরশেদ আলম খসরু ও হাসিবুর রেজা কল্লোল। আর ভারত থেকে-গৌতম ঘোষ, ব্রাত্য বসু, গৌতম ভট্টাচার্য, অঞ্জন বোস ও তনুশ্রী চক্রবর্তী। এ ক্ষেত্রে বিচার্য ২০১৮ সালের জুন থেকে চলতি বছরের (২০১৯) জুন পর্যন্ত ভারত ও বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলো।

Loading...