কোন দুর্নীতিবাজ ও ষড়যন্ত্রকারীকেই ছাড় দিচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী: জামাল মোস্তফা

১:৫৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৯ Uncategorized

রাজু আহমেদ, ষ্টাফ রিপোর্টার- ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্যানেল মেয়র হাজী জামাল মোস্তফা বলেছেন, কোন দুর্নীতিবাজ ও ষড়যন্ত্রকারীকে ছাড় দিচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুর্নীতি ও ষড়যন্ত্রের সঙ্গে কারো সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিললে সাথে সাথে সেই বিচার করতে বঙ্গবন্ধুকন্যা সর্বদাই বদ্ধপরিকর।

শুক্রবার (২৫ শে অক্টোবর) সময়ের কণ্ঠস্বরকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ভারপ্রাপ্ত মেয়র।

ডিএনসিসির ০৪ নম্বর ওয়ার্ডের বারবার নির্বাচিত সফল এই কাউন্সিলর বলেন, দেশের সার্বিক উন্নয়নকল্পে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সুযোগ্য কন্যা দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শকে বুকে লালন করে বাকী জীবনটা জনসেবার মাধ্যমে জনগণের মাঝে বিলীন করে দিতে চাই।

বাংলাদেশের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একটি পবিত্র ফুল আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ফুল পরহিত ব্রতে উৎস্বর্গীকৃত জীবনের স্বার্থক প্রতিনিধি। সে কখনোই তার নিজের প্রয়োজনে আসেনা। সে তার সৌরভ ও সৌন্দর্যে সকলকে মোহিত করে। সৌন্দর্যের প্রতীক হয়ে সে শোভা পায় সকলের মনোরাজ্যে। নিজের সৌন্দর্য ও সৌরভ অন্যের মাঝে বিলিয়ে দেওয়াই তার স্বার্থকতা। তেমনি দেশের ১৭ কোটি মানুষের মনোরাজ্যে সৌরভ ও সুবাস বিলিয়ে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।

কাফরুল থানা আওয়ামী লীগের এই সভাপতি আরো বলেন, বিরোধীদল ক্ষমতায় থাকাকালীন দেশে অনেক কিছুরই অভাব ছিলো। বিশেষ করে অর্থনৈতিক অবস্থা ছিলো খুবই নাজুক। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন। বিশ্বের প্রভাবশালী প্রধানমন্ত্রীদের তালিকার প্রথম দিকেই তার নামটি তালিকাভুক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন। শেখ হাসিনার হাত ধরেই উন্নত বিশ্বের বুকে বাংলাদেশ আজ মধ্যম আয়ের দেশ এবং উন্নয়নের রোল মডেল।

গত মেয়াদে ক্ষমতায় এসে তিনি যেসব অঙ্গীকার করেছিলেন, এই মেয়াদে তা পরিপূর্ণভাবে পালন করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে জামাল মোস্তফা আরো বলেন, দুর্নীতি উন্নয়নের একটি বড় অন্তরায়। শেখ হাসিনা কাউকেই ছাড় দেন না। দুর্নীতিতে ব্যাপকতা রোধ করে জিডিপির প্রবৃদ্ধি ২-৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে তার হাত ধরেই। মাথাপিছু আয় বেড়েছে প্রায় দ্বিগুন। দেশের নিজস্ব অর্থে বিপুল আকাঙ্খিত স্বপ্নের পদ্মা সেতু আজ আর স্বপ্ন নয়, বাস্তবে রুপ দিয়েছে। পোশাক শ্রমিকদের সর্বনিন্ম পারিশ্রমিক নির্ধারন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, মেট্রোরেল, আধুনিক ঢাকা গড়ার প্রত্যসহ বৃহৎ বৃহৎ মেগাপ্রকল্প অসীম সাহসী প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বেই আজ দৃশ্যমান হয়ে উঠেছে। দেশ আজ সকল আধুনিক সেবা পাচ্ছে। ন্যাজ্যমূল্যে দেয়া হচ্ছে চাল। কৃষিখাতে প্রয়োজনীয় ভর্তুকী। অজপাড়াগাঁ আজ বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সুবিধা ভোগ করছে।

আক্ষেপ করে জামাল মোস্তফা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সুনাম নষ্ট করাসহ বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করতে একটি কুচক্রীমহল উঠে পড়ে লেগেছে। নিজেদের স্বার্থ চারিতার্থ করতে সুখের পায়রার মতো আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যোগ দিয়ে নানা রকম ষড়যন্ত্র, দুর্নীতিতে লিপ্ত হয়েছে। তারা হয়তো জানেনা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভেঙ্গে পড়া বা অন্যায়ের প্রশ্রয় দেয়ার মত প্রধানমন্ত্রী নন। তিনি কাউকেই ছাড় দেবেন না। দুর্নীতিবাজ ব্যাক্তি যে দলেরই হোক না কেনো, কঠোর হাতে দমন করা ও মূলোৎপাটন করার ক্ষমতা পরিপূর্ণভাবে রয়েছে তার।

“তাই সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যুক্ত হয়ে কেউ কোনো রকম দুর্নীতি বা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হওয়া থেকে দূরে থাকুন। নইলে কঠোর শাস্তি অপেক্ষা করছে। এদেশে দুর্নীতি ও ষড়যন্ত্র করে কেউ পার পাবেন না।” যোগ করেন ডিএনসিসি প্যানেল মেয়র।

Loading...