ফলাফলে ‘আকাশ-পাতাল’ ব্যবধান, যা বললেন মৌসুমী

৫:৩৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক- অজানা কারণে পেছন থেকে অনেকেই সরে গেলেন। তবু শেষ পর্যন্ত একাই লড়াই করেলেন মৌসুমী। বিপরীতে শক্তিমান মিশা-জায়েদ প্যানেল। চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার আগমুহূর্ত পর্যন্ত অনেকেই ভেবে রেখেছেন সমিতির নারী সভাপতি হিসেবে মৌসুমীই প্রথম বিজয়ের মশাল জ্বালাবেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে।

কিন্তু, না। হলো না। মাত্র ১২৫ ভোট পেয়ে হেরে গেলেন মৌসুমী। অন্যদিকে ২২৭ ভোট পেয়ে আবারও জয়ের মালা উঠলো ঢাকাই চলচ্চিত্রের শক্তিমান অভিনেতা মিশা সওদাগরের গলায়। এদিকে ২৮৪ ভোট পেয়ে আবারও জয় নিশ্চিত করলেন সমিতির প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান।

২৫ অক্টোবর দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক (২০১৯-২১) নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন। ফলাফলে বিপুল ভোটে বিজয় ছিনিয়ে নেয় মিশা সওদাগর-জায়েদ খানের পুরো প্যানেল।

এদিকে সাধারণত নির্বাচনের পর প্রতিপক্ষ কিংবা নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলতে দেখা যায় পরাজিত প্রার্থীকে। কিন্তু সে পথে হাঁটলেন না মৌসুমী। নির্বাচনের ফল মেনে নিয়ে নতুন কমিটিকে শুভ কামনা জানিয়েছেন প্রিয়দর্শিনী এই নায়িকা। তবে ভোটের আকাশ-পাতাল ব্যবধানকে একটা ‘ম্যাকানিজম’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

মিশা সওদাগরের সঙ্গে তার ভোটের ‘আকাশ-পাতাল’ ব্যবধান সম্পর্কে জানতে চাইলে মৌসুমী বলেন, ‘এটা তো একটা ম্যাকানিজম। এই ম্যাকানিজম কিছুটা রোধ করা যেত আমাদের কাঞ্চন ভাই (প্রধান নির্বাচন কমিশনার) যদি এটা বলতেন যে, একেবারেই কেউ মোবাইল নিয়ে ঢুকতে পারবে না। তাহলে কিন্তু আমরা এই ম্যাকানিজম প্রতিরোধ করতে পারতাম। মানে ভোট দেওয়ার স্বাধীনতা তো দিতে হবে। ভোটারের তো এই স্বাধীনতা ছিল না। এই কারণে আকাশ-পাতাল পার্থক্য চলে আসছে।’

নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে আপিল করবেন কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে মৌসুমী বলেন, ‘না, আমি ফলাফলের বিরুদ্ধে কোনো আপিল করব না। কারণ, এটা আমি মনে করি ফলাফল যেটা হয়েছে সেটা সবার জন্যই, সবাই যেটা দেখছে আমিও সেটাই দেখছি। সবাই মেনে নিলে আমি মেনে নিব, এখানে আপিল করার কিছুই নেই।’

এফডিসির গেটে নিরাপত্তার কড়াকড়ি এবং বিশেষ করে মৌসুমীর সমর্থকদের অনেককে হেয় করা হয়েছে-এই প্রসঙ্গে এই চিত্রনায়িকা বলেন, ‘হ্যাঁ, এটা আমরা কমপ্লেন পেয়েছি, এটা বলেছি। আমাদের শ্রদ্ধেয় পারভেজ সাহেব বলেছেন, যে কড়াকড়ি শিল্পীদের ক্ষেত্রে করা হয়েছে, এটার তো কোনো মানেই হয় না। যারা শিল্পী, যারা ভোটার তাদের এ কড়াকড়ি করতে হবে কেন?’

মিশা-জায়েদের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে মৌসুমী বলেন, শিল্পী সমিতি যে সিদ্ধান্তগুলো নেবে সেগুলোর সঙ্গে আমিও একমত থাকব। শিল্পীর জন্য কাজ করলে আমি ওদের পাশে থাকব। কিন্তু ব্যক্তিগত কাজের ক্ষেত্রে হাত বাড়াবো না। শিল্পীদের উন্নয়নে কিছু করে সেখানে অবশ্যই যাবো।

Loading...