ভক্তদের ধৈর্য ধরতে বললেন সাকিব

৮:২৭ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, নভেম্বর ২, ২০১৯ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জুয়ারিদের প্রস্তাব গোপন রাখার অপরাধে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তবে আকসুকে তদন্ত কাজে সহায়তা করায় তার শাস্তি এক বছর কমিয়ে এনেছে আইসিসি। যার ফলে এক বছর শাস্তি ভোগ করেই মাঠে ফিরতে পারবেন সাকিব।

শাস্তির খবর আইসিসির জানানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ইংরেজি হরফে লেখা ছিল সাকিবের নিজের কথাও। যেখানে নিজের অপরাধ স্বীকার করে নেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার। এই সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ঘণ্টাখানেক পর বিসিবি লাউঞ্জে দাঁড়িয়ে সংবাদ মাধ্যমে একই কথাগুলো বাংলায় বলে যান সাকিব।

তখন তাকে উপস্থিত সাংবাদিকরা প্রশ্ন করতে চাইলেও সাফ জানিয়ে দেন এখন কোনো প্রশ্নের উত্তর দিতে চান না। শুধু সেদিনই নয়। সাকিব চুপ ছিলেন পুরো তিনদিন। অবশেষে শুক্রবার মধ্যরাতে নিজের ফেসবুক পেজের মাধ্যমে মুখ খুলেন তিনি। জানালেন নিজের কথা।

এদিকে আইসিসির দেওয়া শাস্তি সাকিব মেনে নেলেও মানতে পারছেন না তার ভক্ত-শুভাকাঙ্ক্ষিরা। অবশেষে শুক্রবার মধ্যরাতে নিজের ফেসবুক পেজের মাধ্যমে সাকিব তাই ফেসবুকে ভক্তদের ধৈর্য ধরতে বললেন।

নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাত ১টা ২০ মিনিটের দিকে এক স্ট্যাটাস দেন সাকিব। তাতে লেখেন, ‘আমার ভক্ত এবং শুভাকাঙ্ক্ষিদের উদ্দেশ্যে এই বলে শুরু করছি যে, খুবই কঠিন সময়ে আমার এবং আমার পরিবারের প্রতি আপনাদের নিঃশর্ত ভালোবাসা ও সমর্থন আমাকে ছুঁয়ে গেছে। নিজকে খুবই ভাগ্যবান মনে হচ্ছে। দেশের প্রতিনিধিত্ব করা কত বড় ব্যাপার এই ক’দিনে আমি আগের থেকে অনেক বেশি অনুভব করছি।

সেই জায়গা থেকে যেসব ভক্ত-সমর্থকরা আমার নিষেধাজ্ঞার খবরে ক্ষুব্ধ হয়েছেন তাদের প্রতি অনুরোধ করবো আপনারা শান্ত থাকুন, ধৈর্য ধরুণ। আমি আপনাদের একটা বিষয় পরিষ্কার করতে চাই, আইসিসির অ্যান্টিকরাপশন ইউনিটের অনুসন্ধানের পুরো ব্যাপারটা ছিল গোপনীয়।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এ বিষয়ে কিছু্ই জানত না। আমার নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা আসার মাত্র ক’দিন আগেই তারা আমার কাছ থেকে এটি প্রথম জানতে পারে। ওই সময় থেকেই বিসিবি আমার পাশে আছে। তারা আমার অবস্থাটাও বুঝতে পারে। সেজন্য আমি কাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

আমার এই খারাপ সময়ে অনেকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন। আমি তাদের প্রশংসা করি। কিন্তু নিষেধাজ্ঞার সময়টায় আমাকে একটা প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে। আমি আমার নিষেধাজ্ঞা মেনে নিয়েছে। কারণ আমার মনে হয়েছে, সাজা মেনে নেওয়াই সঠিক সিদ্ধান্ত। এখন আমার পুরো মনোযোগ ক্রিকেট মাঠে ফেরা এবং বাংলাদেশের হয়ে ২০২০ সালে আবার ক্রিকেট খেলা। সেই পর্যন্ত আমার জন্য প্রার্থনা করুণ। ধন্যবাদ।’

Loading...