সংবাদ শিরোনাম
নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম নিয়ন্ত্রনে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ | বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হচ্ছে: রাষ্ট্রপতি | হাসপাতালে চেয়ার না পেয়ে নিজের কাঁধেই বসালেন অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে! | সাপাহারে সীমান্ত দিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশকালে ৩ যুবক আটক | সিরাজগঞ্জে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ: বিএনপির ১৫৭ নেতাকর্মীর নামে মামলা | মির্জাপুরে একরাতে দুই নারী ও এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা | মুন্সীগঞ্জের তিনটি ইটভাটা উচ্ছেদ, ১৩ লাখ টাকা জরিমানা | দিনে গালাগালি, রাতে গলাগলি | ক্রিকেটে মেয়েদের পর এবার স্বর্ণ জয় ছেলেদেরও | ডাকসু নেতাদের কর্মকাণ্ড ও সান্ধ্যকালীন কোর্স ভালো লাগে না: রাষ্ট্রপতি |
  • আজ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দানবীর আরপি সাহার ১২৩ তম জন্মজয়ন্তী আজ

৪:১৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, নভেম্বর ৮, ২০১৯ ঢাকা
Tangail

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ এশিয়াখ্যাত কুমুদিনী হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার ১২৩তম জন্মদিন ( ইংরেজী ১৮৯৬ সালে সাভারের কাছৈড় গ্রামে নানা বাড়িতে রণদা প্রসাদ সাহা জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈত্রিক বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুরে। বাবা দেবেন্দ্রনাথ সাহা ও মা কুমুদিনী সাহার চার সন্তানের মধ্যে রণদা দ্বিতীয়। বাবা ছিলেন দলিল লেখক এবং ছিলেন মা গৃহিনী।

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে মির্জাপুর রণদা নাট মন্দির এবং কুমুদিনী কমপ্লেক্সের ভারতেশ্বরী হোমসে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। কুমুদিনী কল্যান ট্রাস্ট্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহার সভাপতিত্বে বিশিষ্ট নাট্যকার মামুনুর রশিদ এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

দানবীর রণদাপ্রসাদ সাহা ১৪ বছর বয়সে চলে যান কলকাতায়। যোগ দেন বিপ্লবী দলের সঙ্গে। এ কারণে তাঁকে কয়েকবার কারাবরণ করতে হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি বেঙ্গল অ্যাম্বুল্যান্স কোরে যোগ দিয়ে চলে যান ইরাকে। সেখানে হাসপাতালে এক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় রোগীদের জীবন বাঁচালে তাঁকে বেঙ্গল রেজিমেন্টে কমিশন প্রদান করা হয়।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর সেনাবাহিনীর চাকরি ছেড়ে দিয়ে কিছুদিন রেলওয়েতে চাকরি করেন। এরপর করেন কয়লার ব্যবসা। মাত্র চার বছরে তিনি বিশিষ্ট কয়লা ব্যবসায়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পান। তবে ধন-সম্পদের সবটাই তিনি বিলিয়ে দেন মানবকল্যাণে। গড়ে তোলেন মায়ের নামে কুমুদিনী হাসপাতাল, কুমুদিনী কলেজ, কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থা, বাবার নামে দেবেন্দ্রনাথ কলেজ। এ ছাড়া ভারতেশ্বরী হোমস প্রতিষ্ঠা তাঁর অন্যতম কীর্তি। ১৯৭১ সালের ৭ মে পাকিস্তান সেনাবাহিনী কর্তৃক তিনি অপহৃত হন। এরপর তাঁর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

Loading...