সংবাদ শিরোনাম
শুক্রবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করবেন স্বজনরা | ‘ইরান পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় ইহুদিবিদ্বেষী’- ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী | সাঈদীর পক্ষ নিয়ে ওয়াজ করায় সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ | ভারতে এইডস আক্রান্ত তরুণীকে গণধর্ষণ, আতঙ্কিত আসামিরা | গজনভি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালাল পাকিস্তান | বিয়ের ২৪ ঘন্টা না পেরোতেই পুরুষাঙ্গ হারালো বর! | ভারতের মুসলিমদের জন্য সরব কিন্তু চীনের বেলায় নিরব পাক প্রধানমন্ত্রী | ‘মুসলিম হয়ে ভারতে টিকে থাকা অনেক কঠিন’- নাসিরুদ্দিন শাহ | নওগাঁ সীমান্তে তিন বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ | বছরের প্রথম ২৩ দিনেই বিএসএফের গুলিতে নিহত ১৫ বাংলাদেশি |
  • আজ ১১ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দানবীর আরপি সাহার ১২৩ তম জন্মজয়ন্তী আজ

৪:১৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, নভেম্বর ৮, ২০১৯ ঢাকা
Tangail

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ এশিয়াখ্যাত কুমুদিনী হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার ১২৩তম জন্মদিন ( ইংরেজী ১৮৯৬ সালে সাভারের কাছৈড় গ্রামে নানা বাড়িতে রণদা প্রসাদ সাহা জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈত্রিক বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুরে। বাবা দেবেন্দ্রনাথ সাহা ও মা কুমুদিনী সাহার চার সন্তানের মধ্যে রণদা দ্বিতীয়। বাবা ছিলেন দলিল লেখক এবং ছিলেন মা গৃহিনী।

দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে মির্জাপুর রণদা নাট মন্দির এবং কুমুদিনী কমপ্লেক্সের ভারতেশ্বরী হোমসে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। কুমুদিনী কল্যান ট্রাস্ট্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহার সভাপতিত্বে বিশিষ্ট নাট্যকার মামুনুর রশিদ এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

দানবীর রণদাপ্রসাদ সাহা ১৪ বছর বয়সে চলে যান কলকাতায়। যোগ দেন বিপ্লবী দলের সঙ্গে। এ কারণে তাঁকে কয়েকবার কারাবরণ করতে হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি বেঙ্গল অ্যাম্বুল্যান্স কোরে যোগ দিয়ে চলে যান ইরাকে। সেখানে হাসপাতালে এক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় রোগীদের জীবন বাঁচালে তাঁকে বেঙ্গল রেজিমেন্টে কমিশন প্রদান করা হয়।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর সেনাবাহিনীর চাকরি ছেড়ে দিয়ে কিছুদিন রেলওয়েতে চাকরি করেন। এরপর করেন কয়লার ব্যবসা। মাত্র চার বছরে তিনি বিশিষ্ট কয়লা ব্যবসায়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পান। তবে ধন-সম্পদের সবটাই তিনি বিলিয়ে দেন মানবকল্যাণে। গড়ে তোলেন মায়ের নামে কুমুদিনী হাসপাতাল, কুমুদিনী কলেজ, কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থা, বাবার নামে দেবেন্দ্রনাথ কলেজ। এ ছাড়া ভারতেশ্বরী হোমস প্রতিষ্ঠা তাঁর অন্যতম কীর্তি। ১৯৭১ সালের ৭ মে পাকিস্তান সেনাবাহিনী কর্তৃক তিনি অপহৃত হন। এরপর তাঁর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

Loading...