সংবাদ শিরোনাম
বিশ্বব্যাপী ৮ লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত, মৃত ৪১ হাজার | করোনা নিয়ে মমতার কবিতা ভাইরাল | অসুস্থ না হলে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা | ‘এশিয়ায় করোনার মহামারি শেষ হতে এখনও অনেক দেরি’- বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা | ‘সামনের দিনগুলো আরো ঝুঁকিপূর্ণ ও কঠিন হবে’- সাঈদ খোকন | ‘মশার গান আমি শুনতে চাই না, মশা মারতে হবে’- প্রধানমন্ত্রী | চিকিৎসক ও গণমাধ্যম কর্মীদের পিপিই দিলেন মাশরাফি | ‘পরিবার নিয়ে ঘরে নামাজের জামাত করুন’- মাওলানা ফজলুর রহমান | করোনা প্রতিরোধে জাতীয় ঐক্য গড়ার আহ্বান ভিপি নুরের | রাজবাড়ীতে জ্বর-শ্বাসকষ্টের ২ রোগীকে ঢাকায় প্রেরণ, একজনের মৃত্যু |
  • আজ ১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘বাকশাল ছিল ঐক্যের প্ল্যাটফর্ম’- প্রধানমন্ত্রী

১:৫০ অপরাহ্ণ | শনিবার, নভেম্বর ৯, ২০১৯ জাতীয়
pm

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অর্থনীতির দ্রুত বিকাশের লক্ষ্যে দেশের সব শ্রেণির মানুষকে নিয়ে একটি জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এ ঐক্যের নাম বাকশাল, বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক লীগ। বাকশাল ছিল ঐক্যের প্ল্যাটফর্ম।

রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শনিবার দুপুরে জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ স্বাধীনের পর যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের শিল্প কারখানাগুলো নতুন করে চালু করা হয়েছিল। কৃষক শ্রমিককে দেশের অর্থনীতির মূল ভিত্তি বিবেচনা করে বাকশালের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির মুক্তি দ্রুত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলে’ যেন ক্ষয়ক্ষতি না হয় সে জন্য দেশবাসীকে দোয়া করার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, বুলবুল মোকাবিলায় সমস্ত প্রস্তুতি আমাদের নেয়া আছে। যারা নৌপথে যাতায়াত করেন, আজ তাদের অনেক প্রতিনিধি এখানে (সম্মেলনে) উপস্থিত হতে পারেন নাই।

এদিকে সকাল থেকে সম্মেলন উপলক্ষে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জড়ো হতে থাকে জাতীয় শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা। প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত হলে শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা ‘শেখ হাসিনার আগমন শুভেচ্ছা স্বাগতম’ স্লোগান দেন। স্লোগানের মাধ্যমে সম্মেলনের প্রধান অতিথি ও সংগঠনের সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিবাদন জানান তারা। পরে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শ্রমিক লীগের সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করা হয়।

উল্লেখ্য, জাতীয় শ্রমিক লীগ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৯ সালের ১২ অক্টোবর, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরে। প্রতিষ্ঠার পর অনেক চাড়াই- উতরাইয়ের মধ্যদিয়ে গেছে সংগঠনটি। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর দলের একাংশ (মিজান) শ্রমিক লীগের মূল নেতাদের নিয়ে আলাদা হয়ে যায়।

পরে ৮০ এর দশকে শ্রমিক লীগ আবার বাকশালের দখলে চলে যায়। শুরু থেকেই এটি আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে থাকলেও বর্তমানে ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন হিসেবে কাজ করছে।

২০১২ সালের ১৯ জুলাই সংগঠনটির সর্বশেষ সম্মেলনে শ্রমিক নেতা শুক্কুর মাহামুদ সভাপতি, ফজলুল হক মন্টু কার্যকরী সভাপতি এবং মো. সিরাজুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

Loading...