সংবাদ শিরোনাম
পেঁয়াজের দাম বাড়ায় ভারতে খাদ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা | ফেসবুকে দুই কলেজছাত্রীর ‘অনৈতিক’ ফাঁদ, নোয়াখালীতে গ্রেফতার ৩ | একটি পদ্মার ইলিশ কিনলেই এক কেজি পেঁয়াজ ফ্রি! | দিল্লিতে কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ৩৫ | সালমান-ক্যাটরিনা এখন ঢাকায়, টিকিটের মূল্য শুনে বিস্মিত ম্যানেজার! | রোহিঙ্গা শিবিরে দুই  ডাকাত দলের গোলাগুলিতে নিহত ১ | গঠনতন্ত্র পরিপন্থী কাউন্সিলের অভিযোগ এনে সংবাদ সন্মেলন করলেন রাজবাড়ী ১ আসনের এমপি | জাবির ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ যাচাই করা হচ্ছে, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী | ফরিদপুরে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের বিনামূল্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ | সুনামগঞ্জে একই স্থানে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের গণমিছিল ও সভা, ১৪৪ধারা জারী |
  • আজ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পাওয়া গেছে শিশুটির পরিচয়: দাদী হাসপাতালে, মায়ের খোঁজ মিলছে না

১২:৫৬ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া- ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৭ জন নিহত হওয়ার তথ্য জানা গেছে। এদের মধ্যে পাঁচজনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা আহত লোকজনদের মধ্যে একটি দুই বছরের কন্যা শিশুকেও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আতঙ্কগ্রস্ত শিশুটি নিজের নাম বলতে পারছিল না।

তবে সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশের পর তার অভিভাবকের সন্ধান পাওয়া গেছে। শিশুটির নাম নাইমা। বাড়ি চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার পশ্চিমপাড়ে।

শিশুটির চাচা মানিক জানিয়েছেন, তিনি ফাহিমার কাছে যাচ্ছেন। তার মা কাকলী ও নানীকে পাওয়া যাচ্ছে না। শিশুটির দাদী কুমিল্লা হাসপাতালে রয়েছেন। মেয়েটির বাবা ঢাকায় ছিলেন। তিনিও এখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পথে রয়েছেন।

মানিক বলেন, সিলেটে মাজার জিয়ারত শেষে মা কাকলী ও দাদা-দাদী, নানা-নানীর সঙ্গে নাইমা চাঁদপুরে ফিরছিলো। আমরা ফেসবুকে নাইমার ছবি দেখে চিনতে পারি। কিন্তু ওর মা কাকলী ও নানীর খোঁজ এখনও পাইনি।

প্রসঙ্গত, সোমবার রাত পৌনে ৪টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনের ক্রসিংয়ে আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও তূর্ণা নীশিতার মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ১৭ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অর্ধশতাধিক যাত্রী।

মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে পাঁচটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি ও রেলওয়ে থেকে চারটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রাতেই রেল কর্তৃপক্ষ স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে নিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করেন। পরে ফায়ার সার্ভিস, সিভিল ডিফেন্স ও পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার কাজে অংশ নেন।

Loading...