বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমে মোদির নামে মিথ্যা চিঠি প্রকাশ, নিন্দা ভারতের

৭:৫৯ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯ আলোচিত
modi

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অযোধ্যা মামলা নিয়ে দেশটির প্রধান বিচারপতিকে কোনো চিঠি দেননি। চিঠিটি জাল বলে দাবি করেছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশের কয়েকটি গণমাধ্যমে চিঠিটি ছাপানোর ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার এই নিন্দা জানান। টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, মিথ্যা অসত্য খবর প্রকাশের জন্য আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। বাংলাদেশ-ভারতের জনগণের মধ্যে সম্প্রীতি ও বন্ধুত্ব বিনষ্টের লক্ষ্যে এমন খবর প্রকাশ করা হয়েছে। টুইটারে বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশনের দেওয়া বিবৃতিও যুক্ত করেছেন রবীশ কুমার।

এর আগে গত শনিবার সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণার তিনদিন পরেই প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে লেখা নরেন্দ্র মোদির একটি জাল চিঠি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তাতে লেখা হয়, ‘এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের জন্য হিন্দুরা আপনাদের কাছে চিরকাল কৃতজ্ঞ থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রীর নামে লেখা এ জাল চিঠি নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বাংলাদেশের কয়েকটি পোর্টাল ও গণমাধ্যমের অনলাইন সংস্করণে। এর পরই গোটা বিষয়টি ভারতীয় কর্তৃপক্ষের নজরে আসে এবং ঢাকার ভারতীয় হাই কমিশন এ বিষয়টির কড়া নিন্দা করে বিবৃতি জারি করে।

সেই বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, ‘ভারতীয় হাইকমিশনের গোচরে স্থানীয় যোগাযোগ মাধ্যমের একটি সংবাদ এসেছে যেখানে দাবি করা হচ্ছে যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভারতের প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখেছেন। এই চিঠি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বিদ্বেষপূর্ণ। এর উদ্দেশ্য বাংলাদেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করা ও সামাজিক সম্প্রীতি বিনষ্ট করা। জনপরিসরে ভারত সম্পর্কে ইচ্ছাকৃতভাবে মিথ্যা ও ভুল তথ্য প্রচার করার এই অপচেষ্টা অত্যন্ত গর্হিত ও অনুচিত।’

Loading...