অস্ত্রোপচারের সময় পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখে সেলাই, প্রসূতির মৃত্যু

২:৩৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৯ দেশের খবর, রংপুর

সাইফুল ইসলাম মুকুল, রংপুর প্রতিনিধি- প্রসুতি মায়ের সিজারিয়ান অপারেশন করার পর পেটের ভেতরে গজ ব্যান্ডেজ রেখেই সেলাই করে দেয় প্রাইভেট হাসাপাতালের চিকিৎসক। তীব্র যন্ত্রনায় অসুস্থ হয়ে পড়লে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অপারেশন করে বের করা হয় ওই সব গজ-ব্যান্ডেজ। তবুও বাঁচানো যায়নি তাকে, অবশেষে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে মারা যান প্রসুতি মা নাসিমা বেগম।

রোগীর স্বজন ও হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, চলতি মাসের ৫ নভেম্বর রংপুর নগরীর মীরগজ্ঞ তামফাট এলাকার রাশেদুল ইসলামের স্ত্রী নাসিমা বেগম নগরীর ধাপ এলাকায় অবস্থিত রোজ প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি হয়। ওই দিনই তার সিজারিয়ান অপারেশন করা হয় এবং একটি পুত্র সন্তাব প্রসব করে।

অপারেশন করার পর নাসিমা বেগমের পেটের ভেতরে গজ ব্যান্ডেজ রেখেই সেলাই করে দেয়া হয়। হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়ার পর তার পেট ফুলে যায় তীব্র যন্ত্রনায় ছটফট করার পর ১২ নভেম্বর রোজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতাল কতৃপক্ষ সেখানে ভর্তি না করে ব্যবস্থা পত্র দিয়ে ছেড়ে দেয়। বাসায় চলে আসার পর আবার তীব্র ব্যাথায় অসুস্থ হয়ে পড়লে নাসিমা বেগমকে ১৫ নভেম্বর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সেখানে আলট্রাসনোগ্রাম করার পর পেটের ভেতরে গজ ব্যান্ডেজ ধরা পড়ে। রোববার দুপুরে তার পেটে অপরারেশন করে গজ ব্যান্ডেজ বের করে চিকিৎসকরা। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে মারা যায় নাসিমা বেগম।

এ ব্যাপারে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জিকাল ওয়ার্ডের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. স্বপন জানান, প্রসুতির অপারেশন করে পেটের ভেতরে গজ ব্যান্ডেজসহ আরো কিছু জিনিষ পত্র পাওয়া যায়। রোগীর অবস্থা এমনিতেই গুরুত্বর ছিলো, তার পেট ফুলে গিয়েছিলো ভেতরে রক্ত ক্ষরণ হওয়ায় রোগীকে আর বাঁচানো সম্ভব হয়নি বলে জানান তিনি।

এদিকে প্রসুতি নাসিমা বেগম মারা যাবার খবরে তার স্বামী রাশেদুল ইসলাম ভাই রবিউলসহ অন্যান্য স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে এ সময় হাসপাতাল চত্বরে হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়।

এদিকে রোজ প্রাইভেট হাসপাতাল কতৃপক্ষ ঘটনাটিকে ধামা দেবার জন্য রোগীর স্বজনদের ম্যানেজ করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। নাসিমা বেগম মারা যাবার খবর জানাজানি হওয়ায় ওই হাসপাতালের কর্মকর্তা কর্মচারীরা হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়ে যায়।

স্বজনদের অভিযোগ, ডাক্তার ও নার্সদের দায়িত্বহীনতার কারনে সিজারিয়ান অপারেশন করার পর পেটের ভেতরে গজ ব্যান্ডেজ রেখেই সেলাই করে দেয়ায় ইনফেকশন জনিত কারনে নাসিমা বেগম মারা গেছে। তারা দায়িত্বরত ডাক্তার নার্সসহ রোজ হাসপাতাল কতৃপক্ষের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করেছে।

এদিকে রোজ প্রাইভেট হাসপাতালের ম্যানেজার মিলন সিজারিয়ান অপারেশন করার কথা স্বীকার করে বলেন রোগীর পেটে পুজ হয়ে ইনফেকশন হয়েছিলো।

এ ব্যাপারে রংপুরের সিভিল সার্জেন ডা, হিরম্ব বর্ম্মন জানিয়েছেন, এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযুক্ত প্রাইভেট হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যব্স্থা নেয়া হচ্ছে।

Loading...