• আজ ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পাল্টাপাল্টি অবস্থানে অচল রংপুর মেডিকেল

১২:১৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৮, ২০১৯ স্পট লাইট

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: ইন্টার্ন-নার্সদের পাল্টাপাল্টি অবস্থানে আবারও অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল।

বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) ইন্টার্নরা চিকিৎসকরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে ক্লাশ ও পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়ে আন্দোলন করছেন।

জানা গেছে, হাসপাতালের নার্সরাও আবারো আন্দোলনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। এতে বিপাকে পড়েছেন রোগীরা।

কথায় কথায় ডাকা ধর্মঘট-বর্জনে অস্থিতিশীল রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। তুচ্ছ ঘটনায় সৃষ্টি হওয়া এসব সংকটে অসহায় রোগীরা। এদিকে এ ধরনের মানবিক ও অপরিহার্য এ পেশার ক্ষেত্রে ধর্মঘট-বর্জনের মতো কর্মসূচি বন্ধে এখনই আইন প্রণয়নের দাবি জনস্বাস্থ্য অধিকার আন্দোলন পরিষদের।

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবারও (২৭ নভেম্বর) নার্স ও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে কাঙ্ক্ষিত চিকিৎসাসেবা পাচ্ছেন না রোগীরা।

ইনজেকশনের সিরিঞ্জ থেকে কয়েক ফোঁটা ডিস্টিল ওয়াটার এক ইন্টার্ন চিকিৎসকের গায়ে ছিটকে পড়ার জের ধরে তিন দিন ধরে অচল দারিদ্রপ্রবণ রংপুর অঞ্চলের একমাত্র সরকারি এ হাসপাতাল। ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে অসুস্থ রোগীদের বিপাকে ফেলে দফায় দফায় ধর্মঘট-বর্জনে ইন্টার্ন চিকিৎসক ও নার্সরা। দুর্ভোগে কাবু রোগীরা, ক্ষুব্ধ তাদের স্বজনরা।

সোমবার সকালে ডেন্টাল ইউনিটে এক রোগীকে ইনজেকশন দেয়ার সময় এক নার্সের সিরিঞ্জ থেকে কয়েক ফোঁটা পানি এক ইন্টার্নের গায়ে ছিটকে পড়ালে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতি হয়। কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপে দুজনের মিটমাট হলেও পরদিন এক জ্যেষ্ঠ চিকিৎসককসহ ওই ইউনিটের ইন্টার্নদের মারপিট করার অভিযোগ ওঠে নার্সদের বিরুদ্ধে।

তুচ্ছ এ ঘটনায় মঙ্গলবার উভয়পক্ষ পরিচালককে অবরুদ্ধ রাখেন ৫ ঘণ্টা। জ্যেষ্ঠ চিকিৎসকদের হস্তক্ষেপে আরেক দফা সমঝোতা হয়। কিন্তু বুধবার সকাল থেকে ইন্টার্নরা আবারও ধর্মঘটে যান সাধারণ শিক্ষার্থীর ব্যানারে, দেয়া হয় ক্লাশ ও পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা। পাল্টা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট ডেকে বিকালে প্রত্যাহার করেন নার্সরা।

গতকাল রংপুর মেডিকেলের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. শাহজাহান বলেন, এখনো কোনো পক্ষ জানায়নি তাদের অভিযোগ হয়ত জানাবে, পরবর্তীতে যা যা করণীয় আছে তাই করা হবে।

চিকিৎসা পেশায় নিয়োজিতদের এ ধরণের কর্মসূচি দেয়া আইন করে বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন রংপুর জনস্বাস্থ্য অধিকার আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ। বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে পরিপত্র জারি করে বা একটা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। না হলে দেশে একটা বড় ধরনের সমস্যা তৈরি হচ্ছে।

সময়ের কণ্ঠস্বর/ফয়সাল

Loading...