তানোরে স্কুল বারান্দার পাশে মরাগাছ, ঝুঁঝিতে শিক্ষার্থীরা

৮:০৯ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ডিসেম্বর ৭, ২০১৯ রাজশাহী
Tanore

অসীম কুমার সরকার, তানোর(রাজশাহী) প্রতিনিধি: স্কুলের বারান্দার পাশে তিনটি বড় বড় মরা শিশুগাছ। যে কোন সময় গাছ কিংবা ডালপালা ভেঙ্গে পড়তে পারে। ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। আর এমন ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন ক্লাস করছে শত শত শিশু শিক্ষার্থীরা।

তানোর উপজেলার কামারগাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এমন ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে পাঠদান করছে শতাধিক খুদে শিক্ষার্থীরা। চরম ঝুঁকিতে রয়েছে ঐস্কুলের শিক্ষার্থীসহ শিক্ষক ও অভিভাবকরাও।

সরেজমিনে বৃহস্পতিবার স্কুলে গিয়ে দেখা গেছে, সকালে স্কুলে জাতীয় সংগীত ও পিটিপ্যারেড হচ্ছে ঐ মরা গাছগুলোর নিচে। এ সময় প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া প্রীতি পাল, দ্বিতীয় শ্রেণির সুমনা, তৃতীয় শ্রেণির অনিক, চতুর্থ শ্রেণির জাহিদ ও রাত্রিসহ একাধিক শিক্ষার্থীরা জানায়, ভয় ও শঙ্কা নিয়ে তারা প্রতিদিন স্কুলে  চলাফেরা করছে। মাঝে-মধ্যে দু’একটা ছোট্ট-বড় ডাল ভেঙ্গে পড়লে তখন তারা ভয়ে আঁতকে উঠে।

এ নিয়ে স্কুলের সহকারী শিক্ষক আঙ্গুরী রাণী পাল জানান, মরা শিশুগাছ তিনটি বেশ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। স্কুলের আমরা সবাই ঝুঁকির মধ্যে চলাফেরা করছি। যে কোন সময় গাছ ভেঙ্গে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিখিল রঞ্জন প্রামানিক বলেন, দীর্ঘদিন থেকে গাছগুলো মরা অবস্থায় আছে। কিছুদিন পূর্বে মরা গাছের একটি বড়ডাল স্কুলের ছাদে পড়ে ছাদের কিছু অংশে ভেঙ্গেছে। আমরা মরা গাছগুলো নিয়ে খুব নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিয়ে স্কুল চালাচ্ছি। বিষয়টি আমি উর্ধতন কর্মকর্তা মহোদয়কে মৌখিকভাবে জানিয়েছি।

এ বিষয়ে উপজেলা (ভারপ্রাপ্ত) প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোসা: জুবাইদা খানম এ প্রতিবেদককে বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ ও ঐ এলাকার এটিও বিষয়টি আমাকে জানায়নি। বিষয়টি আপনার কাছ থেকে জানলাম। আমি লিখিত আবেদন পেলে বন বিভাগের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিবো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. নাসরিন বানু এ প্রতিবেদককে জানান, এ বিষয়ে আমাকে কেউ কিছু বলেনি। এর আগে আমরা প্রাইমারী স্কুলের গাছ নিলামের একটি মিটিং করেছি। যে সমস্ত গাছগুলো ঝুঁকিপূর্ণ সেগুলো অপসারণ করা হবে। শিক্ষা অফিসার রির্পোট দিলে মিটিং করে ঝুঁকিপূর্ণ মরাগাছগুলো নিলামে দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Loading...