• আজ ২১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিএনপি বিলীন হবে, সেই স্থান নেবে জাতীয় পার্টি: জি এম কাদের

৬:৪০ অপরাহ্ণ | শনিবার, ডিসেম্বর ৭, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- দল হিসেবে বিএনপির বিলীন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের। তিনি বলেছেন, ‘বিএনপি এখন হতাশাগ্রস্ত। তাদের বিলীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) রমনার ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটে জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান।

জিএম কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পরেই জাতীয় পার্টি তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি। বিএনপি নেতৃত্ব সংকটে বিলীন হতে পারে। সে ক্ষেত্রে জাতীয় পার্টিই একমাত্র বিকল্প শক্তি হিসেবে সাধারণ মানুষের সামনে রয়েছে। দেশের মানুষ অনেক আশা নিয়ে জাতীয় পার্টির দিকে তাকিয়ে আছে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের নেতা এইচ এম এরশাদ দেশ ও জনগণের জন্য কাজ করেছেন। অনেক প্রতিবন্ধকতার মধ্যে জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেছেন। দেশের জনগণ জাতীয় পার্টির অবদানের কথা ভোলে নাই। জাতীয় পার্টি যখন ক্ষমতায় ছিল দেশের প্রতিটি জায়গায় উন্নয়নের কাজ করেছে। এটা দেশের কেউ অস্বীকার করে না।

এ সময় দলকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টি শক্তি অর্জন করে দ্বিতীয় অবস্থানে যেতে চায়। সরকারের বিকল্প হিসেবে জাতীয় পার্টিকে প্রতিষ্ঠা করতে চাই। জাতীয় পার্টির অঙ্গসংগঠনগুলো দুর্বল হলে মূল সংগঠন দুর্বল হয়ে যাবে। তাই অঙ্গসংগঠনগুলোকেও শক্তিশালী করতে হবে।’

জাতীয় পার্টিকে নিজেরা ধ্বংস না করলে বাইরের কেউ ধ্বংস করতে পারবে না উল্লেখ করে জিএম কাদের বলেন, ‘গত নির্বাচনে ভরাডুবির কারণ হল নিজেদের অভ্যন্তরীণ কোন্দল। এই কোন্দল কাটিয়ে উঠেছি। আমরা জনগণের মতামত নিয়ে আগামীতে দেশ পরিচালনা করব।’

তিনি বলেন, ‘নব্বইয়ের পর থেকে জাতীয় পার্টিকে ধ্বংস করার জন্য অনেক ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। সব ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে জাতীয় পার্টি শক্তিশালী হয়েছে। সংগঠন এক নম্বর হিসেবে আওয়ামী লীগ আছে, দ্বিতীয় বিএনপি, তৃতীয় স্থানে জাতীয় পার্টি। কিন্তু আমরা দ্বিতীয় অবস্থানে চলে যাব ইনশআল্লাহ।’

জিএম কাদের বলেন, জাতীয় পার্টি দেশ ও জনসাধারণের দায়িত্ব গ্রহণ করতে প্রস্তুত। দেশের মানুষ জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তিশালী রাজনৈতিক প্লাটফর্ম হিসেবে দেখতে চায়। ১৯৯০ পর্যন্ত জাতীয় পার্টি দেশের প্রধান রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে ছিল। কিন্তু ‘৯১ সালের পর থেকে জুলুম-নির্যাতন আর হামলা-মামলা দিয়ে জাতীয় পার্টিকে দুর্বল করতে পারেনি। জাতীয় পার্টি দুর্বল হয়েছে অভ্যন্তরীণ ষড়যন্ত্রে। ষড়যন্ত্র থেকে দলকে রক্ষা করতে পার্টির নেতাকর্মীদের সজাগ থাকতেও নির্দেশ দেন জিএম কাদের।

নারায়ণগঞ্জ- ৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন- জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেন বাবলু। এছাড়া আওয়ামী লীগের স্বেচ্ছাসেবক লীগের নব নির্বাচিত সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ এতে উপস্থিত থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন।