সংবাদ শিরোনাম
যে কারণে পাকিস্তানি সমর্থকদের ‘জানোয়ার’ বলেছিলেন গিবস | পাকিস্তান সফরে টাইগারদের শুভকামনা জানালেন সাকিব | ‘সুবিচার নিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগ সরকার বদ্ধপরিকর’- প্রধানমন্ত্রী | সিরিয়ায় রাশিয়ার বিমান হামলায় নিহত ৪০ | নিশ্চয়ই অপরাধে জড়িত ছিলেন বলেই গ্রেফতার, শরিয়ত বয়াতি প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী | ‘প্রয়োজনে ভোট পিছিয়ে ব্যালটে ভোট নিন’- মির্জা ফখরুল | ভারতে চার দলের সিরিজে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা | ‘ঢাকার দুই সিটিতে ১৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ’- ইসি সচিব | ইচ্ছানুযায়ী বাবার কবরের পাশে শায়িত হলেন এমপি ইসমাত আরা | ‘শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী থেকে সরানোর ষড়যন্ত্র চলছে’- কাদের |
  • আজ ৯ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মানের দিক থেকে বাংলাদেশের টেলিভিশন নাটক এগিয়ে: প্রধানমন্ত্রী

৬:৪১ অপরাহ্ণ | রবিবার, ডিসেম্বর ৮, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- সময় পান না বলে টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠান খুব একটা দেখার সুযোগ পান না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে বাংলাদেশের টেলিভিশন নাটকগুলো মানের দিক থেকে এগিয়ে বলে মনে করেন তিনি।

রোববার (৮ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুকন্যা এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ২০১৭ ও ২০১৮ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি কাউকে বদনাম করতে চাই না। অনেক দেশের সিরিয়ালে (ভারতীয় সিরিয়াল) তো শুধু শাড়ি আর গয়নার কমপিটিশন আর খুনসুঁটিপানা দেখি। কিন্তু আমাদের প্রতিটি নাটকের ভেতরে অনেক বেশি জীবনবোধের স্পর্শ আছে। এই নাটক থেকে অনেক কিছু জানা যায়, শেখা যায়, অনেক কিছু বোঝা যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের যে মেধা আছে, তাতে আরও সুন্দর সুন্দর চলচ্চিত্র নির্মাণ হতে পারে। এমন সুন্দর চলচ্চিত্র নির্মিত হোক— সেটাই আমি চাই। কিন্তু সময় তো পাই না। ফাইল দেখতে আর নথি পড়তেই দিনটা কেটে যায়। তবে বিদেশে যাই যখন, তখন বিমানে বসে সিনেমা দেখি। আমাদের বাংলা চলচ্চিত্রগুলো খুঁজে খুঁজে দেখি।

বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও গাজী সব মুক্তিযোদ্ধার প্রতি সম্মান জানিয়ে বলেন, ‘আমরা চলচ্চিত্রের উন্নয়নে অনেক কিছু করেছি। আরও অনেক পরিকল্পনা রয়েছে। আমাদের সিনেমা দর্শক হারিয়েছে। কীভাবে দর্শককে আবারও হলে ফেরানো যায় সেজন্য অনেক উদ্যোগ হাতে নিয়েছি আমরা।

আমি নিজেও হল মালিকদের সঙ্গে বসেছি। আমার মনে হয় দর্শক ফেরাতে হলে সিনেমাকে ডিজিটালাইজড করতে হবে। বিশেষ করে দেশের জেলা-উপজেলা পর্যায়েও সিনেমা হল ডিজিটাল করতে হবে। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। এখন মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বেড়েছে। তাদের জন্য সময় উপযোগী বিনোদনের ব্যবস্থা করতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘শিল্পকলার সবগুলো মাধ্যমের ভেতরে সবচেয়ে শক্তিশালী মাধ্যম চলচ্চিত্র। এর মাধ্যমে মানুষের মনে ব্যাপক পরিবর্তন আনা সম্ভব। মানুষের মনে গভীর দাগ কাটতে পারে এই চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে হবে মানুষের জন্য। দেশে জঙ্গিবাদ আমরা প্রতিরোধ করছি। শুধু আইনের মাধ্যমে মানুষের মধ্যে পরিবর্তন আনা সম্ভব নয়। চলচ্চিত্র এখানে বিরাট একটা ভূমিকা রাখতে পারে। সেদিকে আপনারা আরো বেশি নজর দেবেন।

Loading...