সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১২ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘অসুস্থ খালেদার জামিন না হওয়ায় জনগণ হতাশ, ক্ষুব্ধ ও স্তম্ভিত’- ফখরুল

১১:৩১ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯ জাতীয়
fok

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ও দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন আজকে খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। চরম অসুস্থ থাকার পরও তাকে জামিন না দেওয়ায় দেশের জনগণ হতাশ, ক্ষুব্ধ ও স্তম্ভিত।

আজ বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণীয় ফোরাম স্থায়ী কমিটির বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে মানুষের যে আস্থা রাষ্ট্রের প্রতি রয়েছে, সে আস্থা যদি নষ্ট হয়ে যায়, তাহলে রাষ্ট্রের ভিত্তি দুর্বল হয়ে পড়ে। এ সরকার ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশের সব গণতান্ত্রিক কাঠামোগুলো আস্তে আস্তে ধ্বংস করে দিয়েছে। ২০১৪ সালে তারা একটি পুতুল সরকার গঠন করেছিল আর এবারের নির্বাচন ৩০ ডিসেম্বরের আগে ২৯ তারিখ ডাকাতি করে নিয়ে গেছে। এটা করে আবারও একটা অবৈধ অগণতান্ত্রিক সরকার গঠন করেছে। তখন থেকে আমরা লক্ষ্য করছি তারা বিচার ব্যবস্থা দুর্বল করে ফেলেছে, প্রশাসন দখল করেছে, পার্লামেন্টে একদলীয় করে ফেলেছে এবং মিডিয়ার ওপর জোর করছে।

সারাদেশে আওয়ামী লীগ সরকার সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে বলে উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, তারা এদেশে মানুষের মধ্যে ভয়-ভীতির সৃষ্টি করেছে। যাতে করে সবাই ভয়ের মধ্যে থাকে। মামলা হচ্ছে তাদের প্রধান অস্ত্র। আর সেই অস্ত্র তারা প্রথম থেকেই ব্যবহার করে আসছে। রাজনৈতিকভাবে তারা এতোটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে যে, বিরোধীদলকে তারা মোকাবিলা করতে ভয় পাচ্ছে। তাই প্রশাসনকে ব্যবহার করে তারা ক্ষমতায় টিকে আছে। আজকের এ রায়ে আমরা হতাশ স্তম্ভিত ও ক্ষুব্ধ।

তিনি বলেন, আগামী ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস। আমরা দিনগুলোকে এজন্যই স্মরণ করতে চাই দেশের মানুষের রক্ত ও সংগ্রামের মধ্য দিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে। কিন্তু আমাদের সামনে যে মূল চেতনা ছিল, সেটি ছিল একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা। কিন্তু আজ ৪৮ বছর পরেও আমরা দেই স্বপ্ন লালন করেছি, সে স্বপ্ন তারা আজ খানখান করে দিয়েছে। আমরা এ দিনটিকে আরও বেশি করে স্মরণ করতে চাই, কারণ এ চেতনাকে ধারণ করে যাতে করে আমরা আমাদের গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে পারি। এর জন্য যিনি সারা জীবন সংগ্রাম করেছেন আমাদের দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে যাতে মুক্ত করতে পারি সেজন্যই আমরা এ দিনগুলোকে যথাযোগ্য মর্যাদার সহিত পালন করতে চাই।

স্কাইপে দলের ভারপ্রাপ্ত তারেক রহমানের সভাপতিত্বে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।

Loading...