• আজ ৭ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অস্ত্র হাতে প্রতিশোধের শপথ নিলেন কাসেম সোলাইমানির মেয়ে

১০:৪৮ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জানুয়ারি ১০, ২০২০ আলোচিত
sloo

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় নিহত ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি) কুদস ফোর্সের প্রধান মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানির মেয়ে জেইনাব বলেছেন, আল্লাহর শপথ যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আজীবন সংগ্রাম চালিয়ে যাব।

তিনি শুক্রবার বাবার জন্মস্থান কেরমানে জুমার নামাজের খুতবার আগে দেয়া ভাষণে এই কথা বলেন। ইরানের প্রথা অনুযায়ী এসময় তার বাম হাতে অস্ত্র ছিল। দেশটিতে জুমার নামাজে ভাষণ ও খুতবার সময় পাশে একটি রাইফেল রাখা হয়। খতিব নিজেও রাইফেলটি এক হাত দিয়ে ধরে রাখেন।

জেইনাব বলেন, বাবাকে হত্যা করে আমেরিকা ইরান ও ইসলামি প্রতিরোধ সংগ্রামকে দুর্বল করতে পারেনি বরং গোটা বিশ্বের স্বাধীনচেতা মানুষ ও যুবসমাজ জেগে উঠেছে এবং নিজেদের মধ্যে ঐক্য আরো জোরদার হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আমার বাবা কাসেম সোলাইমানি গোটা বিশ্বকে আবারো দেখিয়ে গেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় শয়তান।

এ সময় জেইনাব তার বাবার প্রতি কোটি কোটি মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রদর্শনের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এছাড়া তার বাবার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসে পদপিষ্ট হয়ে নিহত হওয়া ইরানিদের পরিবারের উদ্দেশে শোক ও সমবেদনা জানান তিনি।

উল্লেখ্য গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের বাগদাদ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি) কুদস ফোর্সের প্রধান এবং ইরাকি মিলিশিয়া কমান্ডার আবু মাহদি আল-মুহান্দিসসহ বেশ কয়েকজন নিহত হন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের সদর দপ্তর পেন্টাগন জানায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে এই হামলা চালানো হয়। অন্যদিকে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কঠোর প্রতিশোধ অপেক্ষা করছে।

এর জবাবে ৮ জানুয়ারি দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ৮০ জন নিহত এবং ২০০ জন আহত হন বলে জানায় ইরানি রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন। তবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে বলেন, ইরানের হামলায় কোনও আমেরিকান আহত বা নিহত হননি।

Loading...