ফেনীতে আজহারীর মাহফিলঃ দুই লক্ষাধিক মানুষের সমাগম

১১:০২ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, জানুয়ারি ১৭, ২০২০ ইসলাম
az

ইসলাম ডেস্কঃ নিষিদ্ধ হওয়ার প্রায় দেড় মাস পর ফেনী সদর উপজেলায় শান্তিপূর্ণভাবে সময়ের আলোচিত ও জনপ্রিয় বক্তা মিজানুর রহমান আজহারীর মাহফিল সম্পন্ন হয়েছে। এতে লক্ষাধিক জনতার সমাগমে মাহফিলস্থল ও আশপাশের এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের উত্তর কাশিমপুরে তাফসির করেন ড. আজহারী। উত্তর কাশিমপুর মডেল দাখিল মাদরাসার উদ্যোগে এ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

মাহফিল উপলক্ষে সকাল থেকে মাদরাসা সংলগ্ন মাঠে বিভিন্ন এলাকা থেকে সববয়সী নারী-পুরুষ ভীড় জমায়। জোহরের নামাজের পর শুরু হয় বয়ান। মাগরিবের পর মহাগ্রন্থ আল-কুরআন থেকে তাফসির করেন ড. মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী। মাহফিলে সমাজ-রাষ্ট্রে শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য কুরআন-হাদিসের আলোকে ১০ বিষয়ের ওপর বিশদ আলোচনা করেন।

পাঠাননগর আমিনিয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে এবং আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক উত্তর কাশিমপুর মডেল দাখিল মাদরাসার সেক্রেটারি কামরুজ্জমান মাসুমের পরিচালনায় মাহফিলে আরও বয়ান করেন ফেনী আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মাহমুদুল হাসান, পদ্মা টেক্সটাইল মিল মসজিদের খতিব মাওলানা অধ্যক্ষ মফিজুল ইসলাম, কুমিল্লার মাওলানা রহমত উল্লাহ ও ছাগলনাইয়ার মধুগ্রাম জিনারহাট ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা জাকারিয়া।

মাহফিলের আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক কামরুজ্জামান মাসুম বলেন, দুই লক্ষাধিক মানুষের অংশগ্রহণে শান্তিপূর্ণভাবে তাফসিরুল কোরআন মাহফিল শেষ হয়েছে। কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহযোগিতা করেছে আমাদের।

মাহফিলে ড. মিজানুর রহমান আজহারী বলেছেন, আল্লাহর সৃষ্টি নিয়ে ব্যাঙ্গ করা যাবে না। বর্ণ, আকার ও নাম নিয়ে কথা বলা যাবে না। কখনো একে অপরের দোষ খোঁজা যাবে না। ব্যাঙ্গ, কটাক্ষ করা যাবে না। অন্যকে ঠাট্টা করো না। কিছু লোক আছে সারাদিন অন্যকে নিয়ে সমালোচনা করে। নিজের দোষ খুঁজতে হবে। যে নিজে নিজের সমালোচনা এবং নিজের সমস্যা সমাধান করতে পারে সেই বুদ্ধিমান। যারা নিচু মনের মানুষ তারাই অন্যের দোষ নিয়ে সমালোচনা করে। যারা মাঝারি ধরনের মানুষ তারা এলাকায় বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে কথা বলে। বড় মনের মানুষরা আইডিয়া নিয়ে কথা বলে সমাজটাকে পাল্টে দিতে চায়। যুগ-জমানা পাল্টে দিতে চাই না অনেকজন, এক মানুষই আনতে পারে জাতির জাগরণ। এজন্য নিজেকে শুধরাতে হবে। আগে নিজে ঠিক হয়ে যান, দুনিয়া এমনি ঠিক হয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, বিভেদের প্রাচীর আর বৃত্ত আমরা বানিয়েছি। ইসলাম, ধর্ম, জাতীয়তাবাদ, বর্ণ, ভাষা পৃথক করেছি। শ্বেতাঙ্গ-কৃষ্ণাঙ্গের পার্থক্য। ইসলামে কোনো দাস প্রথা নেই। প্রেসিডেন্ট, শিক্ষক, রিকশাওয়ালা, কুলি, ঠেলাওয়ালা কোনো পার্থক্য নেই। আল্লাহর সামনে সব বিশ্বের মানুষ এক। বিভেদের প্রাচীর ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দিতে হবে। আমরা কোন দল করি, কোন পীরের মুরিদ; সবার আগে পরিচয় আমরা মুসলিম। ভালোবাসা দিয়ে বিশ্ব জয় করতে হবে।

সব হিংসা-বিদ্বেষ আর বিভেদ ভুলে ঐক্য তৈরি করার আহ্বান জানিয়ে আজহারী বলেন, বাংলাদেশকে জঙ্গি, মাদক, যৌতুক, সুদমুক্ত করার জন্য যুবকরাই যথেষ্ট।

এতে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে অংশ নেন ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন, ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম পলাশ, ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও পৌরসভার কাউন্সিলর বাহার উদ্দিন বাহার, জেলা পরিষদ সদস্য ও পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মাহবুবুল হক লিটন, পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন মানিক, শর্শদী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হাসেম, লক্ষীয়ারা ইসলামিয়া আলিম মাদরাসার সভাপতি ইসমাইল হোসেন খোকন, সদর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি নুরুল আবছার আপন, ছাত্রলীগ সভাপতি ফখরুল ইসলাম প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বিভিন্ন স্থানে ড. মিজানুর রহমান আজহারীর মাহফিলে বাধা দেয়ার ঘটনা ঘটে। এরই মধ্যে অনেক স্থানে তার মাহফিল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সিলেটের কানাইঘাটে আজহারীর একটি ওয়াজ মাহফিলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা বিরাজ করে। উপজেলার আলিয়া ও কওমিপন্থী আলেম-ওলামা এবং আওয়ামী লীগ নেতারা মাহফিলের পক্ষে-বিপক্ষে অবস্থান নিলে মাহফিল বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এরপরও সব বাধা উপেক্ষা করে আজহারীর মাহফিলে ঢল নামে মানুষের।

Loading...