সংবাদ শিরোনাম
ইতালিতে করোনায় আক্রান্ত ৬৫০, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৪২ জন | ‘ভেটেরিনারি শিক্ষায় শতভাগ কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা সম্ভব’ | আশুলিয়ায় ছেলের আঘাতে বাবার মৃত্যু, আটক ২ | ভারতে মুসলিম নির্যাতনের প্রতিবাদে টঙ্গীতে বিক্ষোভ মিছিল | ‘অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক মোদিকে আসতে দেয়া হবে না’ | ‘খালেদা জিয়ার কিছু হলে দায় সরকারকেই নিতে হবে’- মওদুদ | ‘পাপিয়ার সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | তুরস্কের পাল্টা হামলায় ১৬ সিরীয় সেনা নিহত | দিল্লির বিক্ষোভ-সহিংসতায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪২ | ‘আওয়ামী সিন্ডিকেটের জন্য সরকার বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি করেছে’- রিজভী |
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

৮ বছর পর ইমামতি করলেন খামেনি, বললেন যুক্তরাষ্ট্রকে ১০ বার ধ্বংস করা হবে

৩:২৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, জানুয়ারি ১৮, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ক্ষোভে উত্তাল ইরানে নিজেই জুমার নামাজের ইমামতি করছেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আল খামেনি। গত আট বছরের মধ্যে এবারই প্রথম তিনি জুমার ইমামতি করছেন।

জুমার খুতবায় খামেনি দখলদার ইসরায়েলকে একটি ক্যান্সারের টিউমার বলে আখ্যায়িত করে কেউ দেশটির বিরোধিতা করলে তাকে সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন। এ ছাড়া ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর যে কোনো মার্কিন হামলার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র দশ বারের বেশি ধ্বংস করা হবে।

জুমার নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিদের হাতে হাতে ইরানি জেনারেল সোলাইমানি ও ইরাকি কমান্ডার আবু মাহদি আল মোহানদেসের ছবি শোভা পাচ্ছিল। এ সময় অনেকেই আমেরিকা ও ইসরায়েলের পতাকায় আগুন দিয়েছেন।

এর আগে সর্বোচ্চ নেতা নামাজ পড়াবেন এ তথ্য জানতে পেরে গতকাল বিপুল সংখ্যক মানুষ সেখানে উপস্থিত হন।

ইরানের সংবাদ সংস্থা মেহের জানায়, ৮০ বছর বয়সী আয়াতুল্লাহ আল খামেনি তেহরানের মোসাল্লা মসজিদে জুমার নামাজের ইমামতি করবেন। কিন্তু এর সঙ্গে বর্তমান পরিস্থিতির কোনো সম্পর্ক রয়েছে কিনা, সে সম্পর্কে কোনো আভাস দেওয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে ইউক্রেনীয় উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় চাপের মধ্যে রয়েছে ইরান। শুধু তাই নয়, পুরো ইরানজুড়ে চলছে ইরানি সরকারের ‘মিথ্যাচারের’ প্রতিবাদে বিক্ষোভ আন্দোলন।

আয়াতুল্লাহ আলী খামেনিসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সিনিয়র নেতাদের পদত্যাগ দাবি করছেন বিক্ষোভকারীরা। আর এ কারণেই আন্দোলনকারীদের শান্ত করতে এবং সরকারের পক্ষে সমর্থন যোগাতে দীর্ঘ আট বছর পর আবারও জুমআর ইমামতি করলেন খামেনি।

এর আগে ২০১২ সালে ইসলামী বিপ্লবের ৩৩তম বার্ষিকীতে জুমায় ইমামতি করেছিলেন ইসলামী প্রজাতন্ত্রটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় এ নেতা। তখন আরব বসন্তের প্রভাবে পুরো মধ্যপ্রাচ্য উত্তাল ছিল।

দ্য ওয়াশিংটন ইনস্টিটিউট ফর নিয়ার ইস্ট পলিসির মাহদি খালাজি বলেন, জুমার নামাজের এই ইমামতি এক ধরনের প্রতীকী তাৎপর্য বহন করে। ইরানের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ যখন কোনো গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিতে চান, তখনই এ সময়টা বরাদ্দ রাখা হয়। তিনি বলেন, জুমার ইমামতি সাধারণত খুতবা দেওয়ার ভালো দক্ষতাসম্পন্ন ধর্মীয় নেতাদেরই দায়িত্ব।

Loading...