লিবিয়ায় যুদ্ধ বন্ধ করে শান্তি প্রতিষ্ঠায় একমত বিশ্বনেতারা

১০:৪৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, জানুয়ারি ২০, ২০২০ আন্তর্জাতিক
liy

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ দীর্ঘ সময় ধরে লিবিয়ায় গৃহযুদ্ধ চলছে। এবার সেখানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় একমত হয়েছেন বিশ্বনেতারা। গৃহযুদ্ধে অবৈধ বিদেশি হস্তক্ষেপের ইতি টানার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তারা।

লিবিয়ার শান্তি ফেরাতে রোববার জার্মানির বার্লিনে আন্তর্জাতিক লিবিয়া সম্মেলন শুরু হয়। সম্মেলনের প্রধান উদ্যোক্তা জার্মানির চ্যান্সেলর আঞ্জেলা মার্কেল। লিবিয়ার যুদ্ধরত দুই পক্ষসহ এতে যোগ দেয় ১০টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিরা।

বার্লিনের চ্যান্সেলর ভবনে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনের উদ্দেশ্য ছিল, বিবদমান পক্ষগুলোর মধ্যে দীর্ঘদিন থেকে যে হানাহানি ও গৃহযুদ্ধ চলেছে, তার অবসান ঘটানো। এ ছাড়া লিবিয়ায় সম্প্রতি গৃহীত যুদ্ধবিরতিকে সুসংহত করা ও বিবদমান পক্ষগুলোর মধ্যে যুদ্ধবিরতির বিষয়ে একমত হওয়া।

লিবিয়ার ক্ষমতাশালী জেনারেল খলিফা হাফতার ও জাতিসংঘ সমর্থিত গভমেন্ট অব ন্যাশনাল অ্যাকর্ড (জিএনএ)-এ দুই পক্ষই সম্মেলনে উপস্থিত থাকলেও প্রতিনিধিরা একে অপরের সঙ্গে দেখা করেননি।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জলা মার্কেল অবশ্য জানিয়েছেন, বিবদমান এই দুই পক্ষ পরস্পর আলোচনায় বসেনি বলে উপস্থিত অন্য পক্ষগুলো সম্মেলনের বিষয়ে তাদেরকে ব্রিফ করেছে এবং তাদের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনায় বসেছে।

তিনি বলেন, কোনো সামরিক হস্তক্ষেপ নয়, রাজনৈতিক উপায়ে লিবিয়া সংকটের সমাধান চান তিনি।

সম্মেলন শেষে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেন, লিবিয়ার শান্তিপূর্ণ সমাধানে বিশ্বনেতারা ‘পুরোপুরি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ’।

ওই সময় লিবিয়ায় চলমান গৃহযুদ্ধের অবসানে বিদেশি হস্তক্ষেপ বন্ধের কথা জানান ইউরোপীয় ইউনিয়ন, রাশিয়া ও তুরস্কের প্রতিনিধিরা।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, সম্মেলন আয়োজনের শুরু থেকেই মস্কো ছিল। আমরা চেয়েছি বিবদমান পক্ষগুলোর পাশাপাশি আঞ্চলিক দেশগুলোকেও এতে সংযুক্ত করতে। আমরা তা পেরেছি। ১২ই জানুয়ারি থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর করেছে রাশিয়া ও তুরস্ক। কিছু ত্রুটি বিচ্যুতি হয়েছে। আশা করি আজ থেকে সবাই লিবিয়ার সার্বিক উন্নয়নে মনোযোগ দেবে।

জার্মানির চ্যান্সেলর ভবনে যখন রুদ্ধদ্বার বৈঠক চলছে, তখন বাইরে অবস্থান নেন বহু লিবীয় নাগরিক। এসময় সংঘাত বন্ধ করে শান্তি, স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানান তারা।

Loading...