সংবাদ শিরোনাম
ইতালিতে করোনায় আক্রান্ত ৬৫০, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৪২ জন | ‘ভেটেরিনারি শিক্ষায় শতভাগ কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা সম্ভব’ | আশুলিয়ায় ছেলের আঘাতে বাবার মৃত্যু, আটক ২ | ভারতে মুসলিম নির্যাতনের প্রতিবাদে টঙ্গীতে বিক্ষোভ মিছিল | ‘অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক মোদিকে আসতে দেয়া হবে না’ | ‘খালেদা জিয়ার কিছু হলে দায় সরকারকেই নিতে হবে’- মওদুদ | ‘পাপিয়ার সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | তুরস্কের পাল্টা হামলায় ১৬ সিরীয় সেনা নিহত | দিল্লির বিক্ষোভ-সহিংসতায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪২ | ‘আওয়ামী সিন্ডিকেটের জন্য সরকার বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি করেছে’- রিজভী |
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ইতালির রোমে বাংলাদেশি নারীদের আয়োজনে শীতকালীন পিঠা উৎসব

১২:২৫ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২১, ২০২০ ইতিহাস-ঐতিহ্য, প্রবাসের কথা

ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি প্রতিনিধি- শীতের নানা রকম পিঠাপুলি বাংলাদেশের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাংলাদেশের উৎসব-আনন্দের সাথে মিশে আছে রকমারি পিঠার স্বাদ। আর সুদূর প্রবাসে এসেও দেশীয় ঐতিহ্যের হরেক রকম স্বাদের পিঠা নিয়ে গত ১৯ শে জানুয়ারি রবিবার নব জাগরণ নারী কল্যান সমিতি এর আয়োজন করে শীতকালীন পিঠা উৎসবের। বাহারি স্বাদের প্রায় অর্ধশতাধিক ধরনের পিঠার সম্ভার ছিল এই উৎসবে।

এতে সংগঠনের সভাপতি সানজিদা ইসলাম সংঙ্গীতার সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক লিপি আক্তার এর প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় পিঠা উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদার।

এ সময় নব জাগরণ নারী কল্যাণ সমিতি ও রোমের সামাজিক, আঞ্চলিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ ইতালী প্রবাসীদের উপস্থিতিতে শুরুতেই পিঠা উৎসব উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদার এর সহ ধর্মীনি পারভীন তাহমিনা।

অতিথিরা তাদের বক্তব্যতে বলেন, আমাদের প্রবাসী সন্তানরা যখন দেশীয় ইতিহাস ঐতিহ্য ভুলতে বসেছে ঠিক সেই মুহূর্তে এই দেশীয় পিঠা উৎসব অবশ্যই প্রসংশনীয়। বাঙালির এই চিরন্তন ঐতিহ্য পিঠা নগর জীবনের আধুনিকতার ছোঁয়া আর পিৎ​জা ও ফার্স্ট ফুডের ভিড়ে হারিয়ে যেতে বসেছে।

তারা আরো বলেন, পিঠা মেলায় দলমত নির্বিশেষে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বাংলাদেশীদের মিলনমেলা দেখে অনেক ভালো লাগছে। এই ধরনের উদ্যোগ বাস্তবায়নে নব জাগরণ নারী কল্যান সমিতিকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলেও আশ্বাস দেন অতিথিরা।

উদ্ভোধন ও আলোচনা পর মেলা ঘুরে দেখছেন আমন্ত্রিত অতিথিরা ভাপা পিঠা, ফুলি পিঠা, সন্দেশ ছাড়াও আরও অনেক বাহারি পিঠার সমাহার ছিলো উৎসবে। স্টলের মধ্য থেকে পিঠা বানানোর পদ্ধতি, স্বাস্থ্যসম্মত আর মজাদার পিঠা ইত্যাদি বিবেচনায় করে অতিথিরা তাদের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সব মিলিয়ে অনুষ্ঠানটি ছিল পুরো বাঙালিয়ানায় পরিপূর্ণ।

গ্রাম বাংলা রেস্টুরেন্টের বিশাল হলরুমে অনুষ্ঠিত এই পিঠা উৎসবে প্রবাসী বাঙালিদের ব্যাপক উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। রোম শহরের দূর দূর অঞ্চল থেকে নানা বয়সের শিশু নারী-পুরুষ পিঠা উৎসবে অংশগ্রহণ ও হরেক রকমের পিঠা পরিদর্শন করেন।

উক্ত পিঠা উৎসবে সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের মধ্যে বিশেষ সহযোগিতায় ছিলেন সিনিয়র সহ সভাপতি রেহানা আক্তার শিল্পী, সহ সভাপতি লাকি সুলতানা, ফরিদা ইয়াসমিন লিপি, উপদেষ্টা নয়না আহমেদ, উম্মেহানি প্রিন্স, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তানিয়া হাসান, নুসরাত জাহান বুবলী, শিউলি শাহজাহান, মুনা আহমেদ, উম্মে মিরা, নুপুর, ইতি রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক রওশন আরা খুকু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শিমু অনন্যা, প্রচার সম্পাদক তানিয়া হোসাইন, নিপা আক্তার সহআরো অনেকেই।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক লিপি আক্তার জানিয়েছেন, আমরা প্রতিবছরই এ ধরনের উৎসবের আয়োজন করে থাকি। এবারের পিঠা মেলা ছিল আগের বছরগুলোর তুলনায় ব্যতিক্রমধর্মী ও অনেক বড়।

গ্রামবাংলার পিঠাপুলির স্বাদ প্রবাসের নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতেই এই উদ্যোগ বলে জানান সভাপতি সানজিদা ইসলাম সংঙ্গীতা। তিনি আরো বলেন, সকলের সহযোগিতায় বিদেশী ও আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে দেশীয় ঐতিয্য পৌচ্ছে দিতে শুধু পিঠা উৎসবই নয়, আরো সুন্দর এবং বড় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করতে সক্ষম হবো। এসময় তিনি সংগঠনের পক্ষ থেকে উপস্থিত সকলের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

Loading...