পাবলিক প্লেসে চার্জ করলেই হ্যাক হতে পারে আপনার ফোন!

২:১৮ অপরাহ্ণ | বুধবার, জানুয়ারি ২২, ২০২০ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক- প্রযুক্তির প্রায় সব কিছুই এখন স্মার্টফোনে। অফিস থেকে বিনোদন সঙ্গে জীবনযাপন। কি নেই স্মার্টফোনে। স্মার্টফোনের সাহায্যে বিশ্বের অনেক কিছুই আপনার হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। কিন্তু সেই স্মার্টফোনের মাধ্যমেই আবার আপনার যাবতীয় তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে হ্যাকাররা। আর সেটা হতে পারে আপনার অজান্তেই।

আপনি যদি নিয়মিত আপনার মোবাইল ফোন অথবা ট্যাবলেট (ট্যাব) পাবলিক প্লেসে যেমন- এয়ারপোর্ট, রেলওয়ে স্টেশন, বাসস্টপ বা ক্যাফের মতো জায়গায় থাকা চার্জিং পয়েন্টে চার্জ করে থাকেন, তাহলে সতর্ক হওয়ার সময় এসে গেছে। কারণ বর্তমানে এসব চার্জিং পয়েন্টগুলোই টার্গেট হিসেবে নিচ্ছে হ্যাকাররা।

জি নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পাবলিক প্লেসে ব্যাটারি চার্জ করলে হ্যাক হতে পারে আপনারা স্মার্টফোন, আইফোন ও ট্যাবলেট। এমনটাই হচ্ছে এখন অনেক দেশে। একদিনে আপনি হয়তো ফোন চার্জে দিচ্ছেন, আর অন্যদিকে আপনার মোবাইলে থাকা যাবতীয় তথ্য হ্যাকারদের কাছে চলে যাচ্ছে। আবার পাবলিক প্লেসে চার্জ থেকে ফোন খুলে নিলেও কিন্তু বিপদ কমছে না। কারণ হ্যাকাররা চার্জিং পোর্টের মাধ্যমে আপনার ফোনের ওয়াইফাই অন করে ইচ্ছেমতো ব্যবহার করতে পারে।

জুস জ্যাকিং

আসলে হ্যাকাররা ‘জুস জ্যাকিং’ বলে একটি প্রযুক্তির মাধ্যমে আপনার স্মার্টফোন অথবা ট্যাবলেট হ্যাক করছে। চার্জিং পয়েন্টে লাগানো চার্জিং ক্যাবেলে যদি ভাইরাস থাকে তাহলে আপনার ফোনের ডাটার নিরাপত্তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। পাবলিক চার্জিং পয়েন্টে যদি আপনি নিজের ফোনের ক্যাবল দিয়েও চার্জ করেন তাহলেও আপনার ডিভাইসকে হ্যাক করা যেতে পারে। জুস জ্যাকিংয়ের মাধ্যমে আপনার ফোন থেকে হ্যাকাররা ডাটা চুরি করে থাকে।

পাবলিক চার্জিং পয়েন্টে লাগানো ক্যাবলের মাধ্যমে আপনার ফোনে ম্যালওয়্যার কিংবা ভাইরাস প্রবেশ করিয়ে দেয় হ্যাকাররা। তারপর ক্রলার্স বলে এক ধরনের ডিজিটাল ভাইরাস আপনার ফোনে থাকা ব্যাঙ্ক, ক্রেডিট কার্ড অথবা ডেবিট কার্ড সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য চুরি করে হ্যাকার্সদের কাছে পাঠিয়ে দেয়। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই এই ভাইরাস নিজের কাজ সেরে ফেলে।

ফোনে ভাইরাস ঢুকিয়ে ডাটা চুরি

হ্যাকারদের কাছে আরেকটা পদ্ধতিও আছে ফোনের ডাটা চুরি করার। এই পদ্ধতিতে ফোনে ভাইরাস ঢুকিয়ে সঙ্গে-সঙ্গে ডাটা চুরি করা হয় না। আস্তে-আস্তে আপনার যাবতীয় তথ্য হ্যাকাররা সংগ্রহ করে নিজের মতো করে ব্যবহার করে। যেমন আপনি কোথায় যাচ্ছেন, কার সঙ্গে দেখা করছেন, কি কথা বলছেন এই সব তথ্য হ্যাকাররা জেনে ফেলে। শুধু তাই নয় ভাইরাসের মাধ্যমে হ্যাক করে ফোনের ক্যামেরা, মাইক্রোফোন এমনকি জিপিএসও ব্যবহার করতে পারে হ্যাকাররা। ভাইরাসের মাধ্যমে আপনার ফোন থেকে অন্য ব্যক্তিকে ফোন করতে পারে তারা। আপনার যাবতীয় ডাটা চুরি করে আপনার কাছে তোলাও চাইতে পারে হ্যাকাররা।

হ্যাকিংয়ের কবল থেকে বাঁচার উপায়:

–  মোবাইল চার্জ করার ব্যাপারে আপনাকে বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে।

– বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় আপনার ফোন ফুল চার্জ করে বের হন। ফোন চার্জ না করতে পারলে সাথে পাওয়ার ব্যাংক রাখুন।

– সুইচ অফ করে চার্জ করাও নিরাপদ নয়। কারণ ফ্ল্যাশ মেমোরির মাধ্যমে ফোন বন্ধ থাকলেও হ্যাকাররা ডাটা চুরি করতে পারে।

– বিশেষ ধরনের ইউএসবি ক্যাবল ব্যবহার করতে পারেন। এই ক্যাবলগুলো ডাটা মোডকে কানেক্ট করে না। শুধু চার্জিং পিনকে পোর্টের সাথে কানেক্ট করে।

সবচেয়ে বড় কথা হলো একটু সতর্ক থাকুন। আর চার্জ শেষ হয়ে গেলে কোনো বিশেষ প্রয়োজন বা জরুরি কাজ না থাকলে দিনে কয়েক ঘণ্টা মোবাইল ছাড়া কাটানোর অভ্যাসও করতে পারেন।