যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য প্রত্যাহারের দাবিতে লাখো ইরাকির গণমিছিল

১০:১১ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জানুয়ারি ২৪, ২০২০ আন্তর্জাতিক
iraq

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইরাক থেকে সব মার্কিন সৈন্য অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবিতে লাখো মানুষের মিছিল হয়েছে বাগদাদে৷ ধর্মীয় নেতা মুকতাদা আল-সাদরের আহ্বানে আয়োজিত মিছিল থেকে ‘‘যুক্তরাষ্ট্র নিপাত যাক, ইসরায়েল নিপাত যাক’’ ধ্বণি ওঠে৷

বিক্ষোভ মিছিলে যোগ দেয়া অনেকের গায়ে ছিল কাফনের কাপড়৷ তাদের কয়েকজন বার্তা সংস্থাগুলোকে বলেছেন, ‘‘ইরাক থেকে মার্কিন সেনাদের ফেরত পাঠাতে প্রয়োজনে আমরা লড়তে প্রস্তুত, সেই লড়াইয়ে মরতেও প্রস্তুত৷’’

অনেকেই ধর্মীয় নেতা মুকতাদা আল-সাদরের ছবি হাতে বিক্ষোভ মিছিলে যোগ দেন৷ ২০০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর ইরাকে হামলা শুরুর পর থেকে সে দেশে মুকতাদা আল-সাদরের জনপ্রিয়তা বাড়ছে৷ ২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আসন পায় তার দল৷

ইরাকের প্রভাবশালী ধর্মীয় নেতা মুকতাদা আল-সাদর যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যদের উপস্থিতির বিরুদ্ধে গণমিছিলে অংশগ্রহণ করতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যদের প্রত্যাহার করা না হলে, তাদের সঙ্গে দখলদার ও শত্রুর মতো আচরণ করা হবে।

গত ৩ জানুয়ারি যুক্তরাষ্টের ড্রোন হামলায় ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান সুলেইমানি এবং ইরাকের আধা সামরিক বাহিনীর নেতা আবু মাহদি-আল মুহানদিসসহ আট জন নিহত হন৷ দু’দিন পর দেশ থেকে সব বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহারের বিল পাস হয় ইরাকের সংসদে৷ সরকার অবশ্য সংসদের এ সিদ্ধান্ত মানতে বাধ্য নয়৷ যুক্তরাষ্ট্রও সেনা সরানোর উদ্যোগ নেয়নি৷ পর্যায়ক্রমে অনেক সৈন্য সরিয়ে নিলেও এখনো পাঁচ হাজার ২০০ মার্কিন সৈন্য আছে ইরাকে৷

২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে ইরাক জুড়ে দীর্ঘদিন চলেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ৷ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিক্ষোভ থামাতে গুলি চালায় বলেও অভিযোগ রয়েছে৷ তাতে অন্তত ৪৭০জন মারা যায়৷শুক্রবার আবার বিক্ষোভ হলো রাজধানী বাগদাদের রাজপথে৷ তবে এবারের বিক্ষোভ যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে৷

ইরাকি সেন্টার ফর স্টাডিজ নামের এক প্রতিষ্ঠানের প্রধান সাইয়্যেদ সাদিক আল হাশেমি জানান, শুক্রবারের গণমিছিলে ২৫ লাখেরও বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করেন। সর্বস্তরের ইরাকিরা বাগদাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে জারদিয়া অঞ্চলে জড়ো হন।

Loading...