চুরির অপবাদ সহ্য করতে না পেরে শিশু মেয়েকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

৮:১০ অপরাহ্ণ | রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২০ খুলনা, দেশের খবর

মহসিন মিলন, বেনাপোল প্রতিনিধি- যশোরের শার্শায় স্বর্ণের চেইন চুরির অপবাদ সইতে না পেরে শিশু মেয়েকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন এক নারী।

রোববার (০২ ফেব্রুয়ারি) বিকালে শার্শা উপজেলার রামচন্দ্রপুরে গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। মৃতরা হলেন রামচন্দ্রপুরে গ্রামের আল মামুনের স্ত্রী জুলেখা বেগম (২৫) ও তাদের মেয়ে আমেনা খাতুন (৫)।

স্থানীয়রা জানান, গত ৬ মাাস আগে প্রতিবেশী আলাউদ্দিনের মেয়ে জুলি খাতুনের গলার চেইন হারিয়ে যায়। আজ রোববার সকালে একই গ্রামের আমেনা খাতুন একটি স্বর্ণের চেইন গলায় দিয়ে পাশের বাড়ি আলাউদ্দিনের দোকানে আসলে চুরি যাওয়া চেইনটি তাদের দাবি করেন। এসময় শিশু কন্যার গলা থেকে চেনটি ছিনিয়ে নিয়ে চোর বলে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। পরে মেয়েটির মা দোকানে এসে প্রতিবাদ করলে তাকেও লাঞ্চিত করা হয়।

বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে বিকালে অন্তঃসত্ত্বা জুলেখা বেগম নিজ কন্যাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে নিজে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পরে খবর পেয়ে শার্শা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছেন।

নাভারন সার্কেল পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান জানান, সুরতহাল রিপোর্টের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। প্রাথমিকভাবে জিঙ্গাাসাবাদের জন্য জুলি খাতুনের মাকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। পুলিশ প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের চেষ্টা করছেন।