নারায়ণগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ ৬০টি পরিবার হতাশায় নির্ভিকার

৫:৪৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

সৈয়দ সিফাত লিংকন, নারায়ণগঞ্জ থেকে- নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের পর থামছেই না ৬০টি পরিবারের আহাজারি। রবিবার দিনগত রাত সাড়ে ৩টায় ইসদাইর এলাকায় এ অগ্নিকান্ড হয়।

এতে ঝুটের গোডাউন, দোকান সহ ৬০টি বসত-ঘর পুড়ে ভস্মীভূত হয়েছে। ঘুমের মাঝে এমন এক বড় ক্ষতির সম্মুখিন হয়ে এখন তারা হতাশায় নির্ভিকার হয়ে পড়েছে।

সবকিছু হারিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ ঝুট ব্যবসায়ীরা জানান, এখানে ১৫ থেকে ২০টি ঝুটের গোডাউন ছিলো। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ঝুটের গোডাউন থাকা সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এখন আমরা পরিবার-পরিজনকে নিয়ে কিভাবে বাচঁবো। বহু কষ্টে গড়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আমাদের চোখের সামনে জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে গেল, কিছুই করতে পারলাম না।

এদিকে মূহুর্তের মধ্যে আগুন পুরো বস্তিতে ছড়িয়ে পড়লে ধোঁয়ায় চারপাশ আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। এসময় আতংকে ছোটাছুটি করতে থাকেন বস্তি ও আশপাশের এলাকার বাসিন্দারা। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়েছে।

এসময় ক্ষতিগ্রস্থ এক বস্তির বাসিন্দা জানান, আগুনের ঘটনায় বাড়ির সকল আসবাবপত্রসহ মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সাথে ঘরে থাকা টাকা-পয়সা, মূল্যবান জিনিসপত্র পুড়ে ছাড়খাড় হয়ে গেছে। এখন কি আমাদের কি হবে? ছেলে মেয়ে নিয়া কি খাবো।

এ ব্যপারে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারি পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন জানান, তিনটি স্টেশনের ১০টি ইউনিটের দমকল কর্মীদের প্রায় এক ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। তবে আগুনে কেউ হতাহত বা দগ্ধ হয়নি। আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমান তদন্তের পর নিশ্চিত করে বলা যাবে বলে জানান তিনি।

তবে বস্তিবাসী ও স্থানীয়দের ধারণা, মশার কয়েল অথবা বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট থেকে এ অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত ঘটে থাকতে পারে।