সংবাদ শিরোনাম
করোনার প্রকোপ কমে আসছে বাংলাদেশে: জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় | ‘বিশ্বকাপের বদলে আইপিএল হলে প্রশ্ন উঠবেই’- ইনজামাম | গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও বেশি মৃত্যু ভারতে | বাংলাদেশিসহ বিশ্বের ১১ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীকে যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগের নির্দেশ | একদিনে রেকর্ড সংক্রমণে যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়াল | করোনা কেড়ে নিল আরও ৫৫ প্রাণ, নতুন শনাক্ত ৩০২৭ | সিলেটে হত্যাচেষ্টা মামলায় হাসপাতালের অফিস সহকারী নূর মোহাম্মদ জেলে | বাংলাদেশে ডাল চাষের সমস্যা ও সম্ভাবনা | কোটালীপাড়ায় পৈত্রিক ভিটায় ‘প্রার্থনা কুঞ্জ’ করতে চেয়েছিলেন এন্ডু কিশোর | নোয়াখালীতে ছয় মাসে ‘৫৪ ধর্ষণ’! |
  • আজ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভারতে নাজেহাল হওয়ার অভিযোগ করলেন ব্রিটিশ সাংসদ

৯:৫১ অপরাহ্ণ | সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ আন্তর্জাতিক
Debbie

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ অধিকৃত কাশ্মিরে ভারতের দিল্লি বিমানবন্দরে নাজেহাল হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন ব্রিটিশ সংসদ সদস্য ও ব্রিটিশ পার্লামেন্টের কাশ্মির বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান ডেবি আব্রাহামস।

ডেবি আব্রাহামস বলেন, অন্যান্য যাত্রীর সঙ্গে আমিও ইমিগ্রেশন ডেস্কের সামনে আমার নথিপত্র পেশ করেছিলাম। তার মধ্যে আমার ই-ভিসাও ছিল। কিন্তু ডেস্কে যে অফিসার ছিলেন, তিনি একবার কম্পিউটারের স্ক্রিনের দিকে তাকালেন। তারপর মাথা নাড়তে নাগলেন। পরে তিনি বললেন, আপনার ভিসা গ্রহণ করা হচ্ছে না। আমার কথা কেউ শুতেই রাজি ছিলবেন না।

তিনি অভিযোগ করেন, এরপর সেই অফিসার ডেবির পাসপোর্টটি নিয়ে চেয়ার থেকে উঠে যান। মিনিট দশেক বাদে ফিরে আসেন। এরপরই অভদ্রভাবে ব্রিটিশ সংসদ সদস্যের সাথে ব্যবহার করেন।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, যা হয়েছে তা খুবই বাজে। আমাকে দেশে ফেরথ পাঠাতেই এইসব করা হয়েছে। আমার সঙ্গে অপরাধীর মত ব্যবহার করা হয়েছে। আশা করব কাস্টমস অফিসারদের মানসিকতার বদল হবে।

বিমানবন্দর থেকেই ব্রিটেনের ভারতীয় দূতাবাসে চিঠি লেখেন ডেবি আব্রাহামস। তাঁর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মোদি সরকার অধিকৃত কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে অঞ্চলটিকে দুই টুকরো করে ফেলার পর এ নিয়ে সরব হয়েছিলেন ডেবি আব্রাহাম। গত ৫ আগস্টের পর থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিকবার এ নিয়ে কথা বলেছেন তিনি। এতে অঞ্চলটিতে মোদি সরকারের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেন তিনি।

লন্ডনে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাসে কড়া ভাষায় চিঠি পাঠিয়েছিলেন এই ব্রিটিশ এমপি। এর মাঝেই ভারতে নিজের আত্মীয়ের সঙ্গে দেখা করতে আসেন তিনি। তার দাবি, তার ই-ভিসা ২০১৯ অক্টোবর থেকে ২০২০ অক্টোবর পর্যন্ত বৈধ ছিল। কিন্তু তার আগেই তা বাতিল করা হয়।

ডেবি আব্রাহামের ভারতে প্রবেশাধিকার কেন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে এবং তার ভিসা কেন বাতিল করা হয়েছে তার কোনো কারণ দেখান নি বিমানবন্দর কর্মকর্তারা। ২০২০ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত আব্রাহামের ভারতীয় ভিসার মেয়াদ রয়েছে।

ভারতীয় কর্তৃপক্ষ ভিসা প্রত্যাখ্যান করার পর তিনি দিল্লি থেকে দুবাই চলে যান। সেখান থেকে ব্রিটেনে ফিরবেন।