• আজ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণে কিশোরী অন্তঃস্বত্ত্বা, যুবকের যাবজ্জীবন

৬:১১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০ খুলনা, দেশের খবর

মোঃ নজরুল ইসলা, ঝালকাঠি প্রতিনিধি- ধর্ষণের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় এক যুবককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড, একই সাথে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিন মাস কারাভোগের আদেশ দিয়েছে ঝালকাঠির একটি আদালত।

দন্ডিত মো. সোহেল ঘরামী (২৭) জেলার নলছিটি উপজেলার রানাপাশা ইউনিয়নের তেতুলবাড়িয়া গ্রামের মো. আইউব আলীর ছেলে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঝালকাঠি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত-২ এর বিচারক শেখ মো. তোফায়েল হাসান আামীর উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করেন।

রাষ্ট্র পক্ষের অতিরিক্ত কৌশলী (এডিশনাল পিপি) আসম মোস্তাফিজুর রহমান নথিপত্রের উধৃতি দিয়ে জানান, একই গ্রামের ১৫ বছরের এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভালবাসার সম্পর্ক স্থাপন করে শারীরিক সম্পর্ক করে আসছিলো সোহেল। এতে ওই কিশোরী অন্ত:স্বত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকাবাসি ও কিশোরীটির পরিবার সোহেলকে ৪ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে পড়া মেয়েটিকে বিয়ে করেত বলে।

কিন্তু সোহেল তাতে অসম্মতি জানালে বাধ্য হয়ে মেয়েটির বাবা ২০১২ সালের ৩ মার্চ ঝালকাঠি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত-১ এর আদালতে সোহেল ও তাঁর মাসহ পাঁচ জনকে আসামী করে ধর্ষণের অভিযোগে একটি নালিশ মামলা দায়ের করে।

পরে মামলাটি ঝালকাঠি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত-২ এর আদালতে স্থানান্তর হয়। আদালত ২০১৩ সালের ২১ নভম্বর অন্য আসামীদের অব্যহতি দিয়ে সোহেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে।

এদিকে ধর্ষণের শিকার ওই মেয়েটির একটি কণ্যা সন্তান জন্ম নেয়। বর্তমানে ৫ বছরের ওই কন্যাকে নিয়ে মা-বাবার সংসারে অসহায় অবস্থায় আছে ওই কিশোরী। তাই আদালত শিশুটির ভরন পোষনের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান রাষ্ট্র পক্ষের অতিরিক্ত কৌশলী (এডিশনাল পিপি) আসম মোস্তাফিজুর রহমান।