সংবাদ শিরোনাম
আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ দ্রুত মেরামত করা হবে: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী | স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই যমুনার তীরে ঈদ আনন্দে মেতে উঠেছেন দর্শনার্থীরা | ভারত মহাসাগরে টেকটনিক প্লেট ভেঙে দুই টুকরো, ভয়াবহ ভূমিকম্পের আশঙ্কা | আবারো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়লো | বাড়ছে না সাধারণ ছুটি, ১৫ই জুন পর্যন্ত গণপরিবহন বন্ধ | রূপগঞ্জে করোনা আক্রান্ত হয়ে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু | চট্টগ্রামে এবার জেলখানার কারারক্ষী করোনায় আক্রান্ত | স্ত্রীর মাথার চুল কেটে ও গোপনাঙ্গে মরিচের গুঁড়া দিয়ে নির্যাতন | ফুল পাঠিয়ে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানালেন শেখ হাসিনা | বিরামপুরে বিষাক্ত স্পিরিট পান করে ৬ জনের মৃত্যু |
  • আজ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাকৃবির দুই শিক্ষক

২:৩৬ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ শিক্ষাঙ্গন
bau

হাবিবুর রনি, বাকৃবি প্রতিনিধি: উন্নয়ন গবেষণায় বিশেষ অবদান রাখায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) দুই শিক্ষককে ‘রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করেছে রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (আরডিএফ)।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক ড. শামসুল আলম এবং উদ্যানতত্ত¡ বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহিমকে অ্যাওয়ার্ডটি প্রদান করা হয়। মঙ্গলবার (১৮) বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা দফতর থেকে বিষয়টি জানানো হয়।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট, সনদ ও অর্থ দেওয়া প্রদান করা হয়। একই অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের চার শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেওয়া হয়।

সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) অধ্যাপক ড. শামসুুল আলম অর্থনীতিতে বিশেষ অবদানের জন্য এবার একুশে পদক-২০২০ এর জন্যেও মনোনীত হয়েছেন। এছাড়াও বাংলাদেশ সরকারের “ষষ্ঠ ও সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা” ও শতবর্ষী “ডেল্টা প্লানের’ সঙ্গেও তিনি যুক্ত আছেন। অন্যদিকে অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহিম বর্তমানে বাকৃবি জার্মপ্লাজম সেন্টারের পরিচালকের দ্বায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি গবেষণা করে বিভিন্ন জাতের ফলের জাত উদ্ভাবন করেন ও বিভিন্ন পদক লাভ করেছেন।

অ্যাওয়ার্ডের বিষয়ে অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহিম বলেন, যেকেনো সম্মাননাই অনুপ্রেরণা যোগায়। বাংলাদেশ কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ের জন্য গবেষণা করে যাচ্ছি আর এই বিশ^বিদ্যালয়ের নামেই অর্জন নিয়ে আসছি। কৃষি বিশ^বিদ্যালয় পরিবারের সকল সদস্য এই অর্জনের অংশীদার। বিশেষ করে আমাদের কৃষক ভাই ও হত দরিদ্র মানুষের পুষ্টি নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করছি। এই মানুষগুলোকেই আমার এই অর্জনটা উৎসর্গ করলাম।