সংবাদ শিরোনাম
করোনায় বিশ্বে প্রাণহানি ৬৪ হাজার ছাড়াল, আক্রান্ত ১২ লাখের বেশি | শাহজাদপুরে করোনা মোকাবেলায় জনপ্রতিনিধিরা নিস্ক্রিয়, আসছেনা সুফল | করোনা সংক্রমণ আতঙ্কের মধ্যেও চলছে ইয়াবা ব্যবসা! | দেবীগঞ্জে চিকিৎসকদের জন্য পিপিই দিলো ওয়ালটন | যুক্তরাজ্যে ৪৩১৩ জনের প্রাণ কেড়ে নিল করোনা | মৃত্যুপুরী ইতালিতে আরও ৬৮১ জনের মৃত্যু | রাজধানীর কারওয়ান বাজারের কলাপট্টিতে আগুন | করোনা মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রীর কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা রোববার | ১১ই এপ্রিল পর্যন্ত পোশাক কারখানা বন্ধ রাখার আহ্বান বিজিএমইএ সভাপতির | শরীয়তপুরে জ্বর-মাথা ব্যথা নিয়ে এক নারীর মৃত্যু, ন‌ড়িয়ায় ক‌রোনা আক্রান্ত হ‌য়ে বৃ‌দ্ধের মৃত্যু |
  • আজ ২২শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এদফায় বাড়ছে পানির দাম!

১২:৫২ অপরাহ্ণ | শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০ জাতীয়
পানির দাম বৃদ্ধি

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- নগরবাসীকে নিরাপদ ও বিশুদ্ধ পানি দিতে না পারার অভিযোগ নিয়ে সমালোচনার মধ্যেই আবারও পানির দাম বাড়াচ্ছে ঢাকা ওয়াসা । আবাসিকে প্রতি ১ হাজার লিটার পানির মূল্য ১৪ দশমিক ৪৬ টাকা এবং বাণিজ্যিকে ৪০ টাকা নির্ধারণ করে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে ঢাকা ওয়াসা।   আগামী ১ এপ্রিল থেকে কার্যকর হবে  নতুন নির্ধারিত এই  মূল্য।

গতকাল শুক্রবার ঢাকা ওয়াসার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পানির উৎপাদন ও বিতরণ ব্যয়ের সঙ্গে বিক্রয় মূল্যের সামঞ্জস্য বিধান এবং বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বাড়ার কারণে ব্যয় সমন্বয় করতে পানির দাম বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে আবাসিকে প্রতি হাজার লিটার পানির দাম ছিল ১১.৫৭ টাকা, আর বাণিজ্যিকে ছিল ৩৭.৪ টাকা। সে হিসেবে আবাসিকে বেড়েছে প্রতি হাজার লিটার পানিতে ২ দশমিক ৮৯ টাকা এবং বাণিজ্যিকে ২ দশমিক ৯৬ টাকা।

সুত্রমতে ইতিপুর্বে,  আবাসিক ও বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য পানির দাম ৮০ শতাংশ বাড়ানোর জন্য স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়কে প্রস্তাব দেয় ওয়াসা। গত বছরের সেপ্টেম্বরে দেওয়া চিঠিতে ওয়াসা আবাসিক ব্যবহারের জন্য প্রতি ইউনিট বা ১ হাজার লিটার পানির দাম ১১ দশমিক ৫৭ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০ টাকা এবং বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য বর্তমান দাম ৩৪ টাকা ৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৬৫ টাকা করার প্রস্তাব দেয়। সেখানে তারা কারণ হিসেবে দেখায়, উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজে অনেক টাকা ঋণ হয়ে গেছে। সেই ঋণ পরিশোধ করার জন্য পানির দাম বাড়ানো দরকার। এছাড়া সংস্থাটির পরিচালনা খরচ বেড়েছে। এর আগে ২০১৭ সালে আবাসিক ও বাণিজ্যিক ব্যবহারের পানির দাম যথাক্রমে ২২ এবং ১৮ শতাংশ বাড়ানো হয়েছিল।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, ঢাকা ওয়াসার পানির সংযোগ রয়েছে তিন লাখ ৯০ হাজার ৬৫১টি। এই সংযোগ থেকে ১ কোটির বেশি মানুষ পানি ব্যবহার করে। বর্তমানে ঢাকায় দৈনিক পানির উৎপাদন ২৪৫ কোটি লিটার। নগরবাসীর মোট চাহিদা ২৩০ থেকে ২৩৫ কোটি লিটার।

ঢাকা ওয়াসার পানির মান নিয়ে রাজধানীবাসীর হাজারও অভিযোগের মধ্যেই আবারও বাড়ানো হলো পানির দাম।

ওয়াসার পানির দাম বাড়ানোর বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ নাগরিকরা। তারা বলছেন, বিদ্যুতের পর পানির দাম বাড়ানোর কারণে এখন বাসা ভাড়া বেড়ে যাবে। যার কারণে আরো বেকায়দায় পড়বে নিম্ন আয়ের মানুষ।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, ‘পানির দাম না বাড়িয়ে আমাদের বিকল্প কিছু ছিল না। দাম না বাড়ালে প্রতিষ্ঠানগুলো টিকতে পারবে না। অন্য কোনো জায়গা থেকে ঋণ করতে হবে। আর সামান্য প্রেশার নিলে মানুষ বৃহত্তর অর্থে উপকৃতই হবে। এসব বিষয় চিন্তা করে বাস্তবতার ভিত্তিতেই দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

Loading...