বাংলাদেশে করোনা আক্রান্তদের একজন নারী ও দুইজন পুরুষ: আইইডিসিআর

৫:৩৯ অপরাহ্ণ | রবিবার, মার্চ ৮, ২০২০ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে বিশ্বব্যাপী মহামারি আকার ধারণ করা প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ৩ বাংলাদেশির পরিচয় পাওয়া গেছে।

আজ রোববার স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, ‘করোনায় আক্রান্ত ওই ৩ বাংলাদেশির মধ্যে দু’জন সম্প্রতি ইতালি থেকে ফিরেছেন। তাদের মধ্যে একজন নারী ও দুইজন পুরুষ। এদের দুইজন একই পরিবারে সদস্য।’

তিনি জানান, ‘আক্রান্তদের কোয়ারেন্টাইনে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের বয়স ২০ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে। করোনা প্রতিরোধে সবধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে, তাই আতঙ্কের কিছু নেই।’

আইইডিসিআরের পরিচালক জানান, ‘জ্বর ও কাশি নিয়ে এই তিন ব্যক্তি আইইডিসিআরে যোগাযোগ করে। এরপর গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় তারা পজিটিভ প্রমাণিত হন।’

যারা দেশের বাইরে থেকে এসেছেন বা আসছেন, তাদের শরীরে করোনাভাইরাসের যেকোনো ধরনের লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা দিলে আইইডিসিআরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয় ব্রিফিং থেকে। একইসঙ্গে দেশের বাইরে যারা আছেন, তাদের প্রতিও নিজ নিজ দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেলেও এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে মনে করছেন অধ্যাপক ডা. ফ্লোরা। তিনি সবাইকে সচেতন হওয়ার জন্য এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনাগুলো অনুসরণ করার আহ্বান জানান।

সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে আক্রান্তরাই কেবল মার্কস পড়বে। সবাইকে সচেতন হতে হবে। এখন পর্যন্ত তিনজন আক্রান্ত হয়েছে। এতে করে সারা বাংলাদেশে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে এমন কিছু বলা যাবে না। স্কুল-কলেজ বন্ধ করার প্রয়োজন নেই। জনসমাগমের মধ্যে না যেতে পরামর্শ দেবো, বাসাতে থাকাই ভালো। তাদের শনাক্ত করা যায় এমন কিছু প্রশ্ন না করার আহ্বান জানান তিনি।’

করণীয় বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়া ও কাশি শিষ্টাচার মেনে চলার বিকল্প নেই।’