করোনা: হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করল ঢাবির ফার্মেসি অনুষদ

১:০৮ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, মার্চ ১৪, ২০২০ শিক্ষাঙ্গন
duu

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকাঃ বাংলাদেশে করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। আবার মজুত করে রাখার কারণে চাহিদা মোতাবেক এসব প্রয়োজনীয় দ্রব্য পাওয়া যাচ্ছে না। যে কারণে শিক্ষার্থীদের কাছে বিনামূল্যে দেওয়ার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টার ও ফার্মেসি অনুষদ।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর বাজারে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সংকট দেখা দেয়। এরপর নিজস্ব ল্যাবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হেক্সিসল তৈরির উদ্যোগ নেয় এ অনুষদের শিক্ষকরা। বিভাগের নিজস্ব অর্থায়নে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তাদের নিজস্ব ল্যাবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানানো শুরু করে। গত ১১ মার্চ তা বানানো সম্পন্ন হয়।

পর্যাপ্ত অর্থায়ন ও ল্যাবের সীমাবদ্ধতার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের কাউকে এই হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সুবিধা দেয়া যাচ্ছে না। তবে কেউ অর্থায়ন ও ল্যাবের সুবিধা দিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তাদেরকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন।

ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি ও ফার্মাকোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল মুহিত বলেন, ‘বাংলাদেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর যখন শুনি বাজার থেকে এসব পণ্য স্টক আউট হয়ে গেছে, তখন অন্তত নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যেন সুরক্ষিত থাকে সে জন্য নিজেদের দায়বদ্ধতা থেকে আমরা এটি প্রস্তুত করেছি। প্রথমদিন আমরা ২০০ বোতল তৈরি করেছি। যার জন্য খরচ হয়েছে ২০ হাজার টাকা। নিজেদের সাধ্যমতো ও ফান্ড পেলে এটি আরও বেশি প্রস্তুত করে শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আবু হোসেন মুহাম্মদ আহসান শিক্ষার্থীদের জন্য এসব হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণের জন্য ফান্ড কালেকশন করার উদ্যোগ নিয়েছেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি। অনেক শিক্ষক সেখানে ইতিবাচক সাড়া দিয়ে সহযোগিতা করছেন।