• আজ ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শরীয়তপুরে খোঁজ নেই বিদেশ ফেরত ৩ হাজার ব্যক্তির, মাঠে স্বাস্থ্য বিভাগ

১০:০৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, মার্চ ১৯, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

নয়ন দাস, স্টাফ রিপোর্টার, শরীয়তপুর: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শরীয়তপুরে বিদেশ ফেরত প্রায় ৩ হাজার জনকে খুঁজছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এই ব্যক্তিরা হোম কোয়ারেন্টিনে (বাড়িতে পৃথকবাস) থাকার কথা, কিন্তু তাঁরা সে নির্দেশনা মানছেন না। এখন তাঁদের খুঁজে বের করে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৯ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে ২ হাজার ৮৩৮ জন শরীয়তপুরে এসেছেন। বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন থেকে শরীয়তপুর জেলা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে এই তালিকা সরবরাহ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) বিকেল ৫টার দিকে শরীয়তপুর সিভিল সার্জনের পক্ষ থেকে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব রোধে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের এমন তথ্য জানানো হয়।

এ সময় ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শেখ মোস্তফা খোকন, সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. সৈয়দা শাহিনুর নাজিয়া, মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. আব্দুর রশিদ, শরীয়তপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক আব্দুস সামাদ তালুকদার, জেলা ইপিআই সুপারিনটেন্ডেন্ট মো. মোজাম্মেল হক, সদর উপজেলার মেডিকেল টেকনলজিস্ট ইপিআই আমির হোসেনসহ জেলার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. আব্দুর রশিদ জানান, ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৯ মার্চ ৩৬৩ জন প্রবাসী শরীয়তপুরে এসেছেন। এদের মধ্যে ১৪ দিন পার হওয়ার পর ৮১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। এর ফলে শরীয়তপুরে হোম কোয়ারান্টাইনে আছে ২৮২ জন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় হোম কোয়ারান্টাইনে নতুন করে যুক্ত হয়েছে ৪৬ জন। আজ ২৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানিকভাবে আইসোলেশন ওয়ার্ড ও হোম কোয়ারেন্টাইনে এখন পর্যন্ত কাউকে রাখা হয়নি।

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন থেকে জেলা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে একটি তালিকা সরবরাহ করা হয়েছে। তালিকায় ১৫, ১৬ ও ১৭ মার্চ বিভিন্ন বিদেশ থেকে ২ হাজার ৮৩৮ জন শরীয়তপুরে এসেছেন। কিন্তু শরীয়তপুর স্বাস্থ্য বিভাগ হিসেবে হোম কোয়ারেন্টাইর আওতায় এসেছেন ৩৬৩ জন। বাকিদের হদিস মিলছে না।

শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন ডা. এসএস আব্দুল্লাহ আল মুরাদ জানান, মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীরা প্রতিদিন প্রবাসীদের পর্যবেক্ষণ করছেন, দিচ্ছেন পরামর্শ। অনেক ক্ষেত্রে এসব স্বাস্থ্যকর্মীরা মুখোমুখি হচ্ছেন নানা বিড়ম্বনার। তবে সব ধরনের বাধা অতিক্রম করে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা মাঠে থাকবেন। যারা বিদেশ থেকে ফিরেছেন তাদের ১৪দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য বলছেন তিনি। আতঙ্ক না ছড়িয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ তার।

এদিকে আজ ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার চরভাগা দেয়ানকান্দি গ্রামের ইটালি প্রবাসী মনিরুজ্জামান সরকার (নয়ন) হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকায় তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ‌নি‌য়ে মোট ৪জন‌কে জ‌রিমানা কর‌লো ভ্রাম্যমান আদালত।