• আজ ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মুন্সীগঞ্জের চর মুক্তারপুরে গাঁজা চাষ, আটক ৩

১১:৪৫ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, মার্চ ২০, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি- পপির পর মুন্সীগঞ্জ সদর থানার চর মুক্তারপুরে গাঁজা চাষের সন্ধান মিলেছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় একটি গরুর ফার্মের পাশে এই আকস্মিক অভিযান পরিচালনা করে মুন্সীগঞ্জ ডিবি পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) রাত ৮ টার দিকে ডিবি পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোজাম্মেল হক এর নেতৃত্বে তার সঙ্গীয় ফোর্স এ অভিযানে অংশ নেয়। এসময় আব্দুর রহমানের ছেলে রহিম বাদশা (৬০), নুরা দেওয়ানের ছেলে লিটন দেওয়ান (২৮) ও ইউসুফ মিয়ার ছেলে লিটন (৩৫) কে আটক করা হয়।

যেভাবে অভিযানে নামে ডিবি পুলিশ

মুন্সীগঞ্জের সদর থানার চরমুক্তারপুরে গাঁজা চাষ করা হয়েছে এমনই সংবাদ আসে ডিবি পুলিশের কাছে। ডিবি পুলিশ এ বিশস্ত গোপন সংবাদকে কেন্দ্র করে ঘটনাস্থলে অভিযান চালানোর প্রস্তুতি নেয়। যেহেতু এলাকাটি ধলেশ্বরী নদীর ওপারে অবস্থিত এবং এলাকাটি অনেকটা দূরবর্তী এলাকা ফলে সেভাবেই প্রস্তুতি নেয় ডিবির এ অভিযানিক দল।

এ অভিযানে সদর থানার ডিবি ইনচার্জ মোঃ মোজাম্মেল হক সুন্দর করে সাজান অভিযানের টিমটি। তিনি এ অভিযানে ৭ জন অফিসারকে টিমের অন্তর্ভুক্ত করে এবং যথারীতি অভিযান চালিয়ে গাঁজার বাগান জব্দ করেন এবং গাজার গাছ বস্তায় ভরে নিয়ে আসেন।

ডিবি পুলিশকে গাঁজার সংবাদ দেওয়ার অভিযোগে মারধর:

মুন্সীগঞ্জ ডিবি পুলিশকে এই গাঁজা বাগানের সংবাদ দেওয়ার অভিযোগে গরু ফার্মের মালিক জুম্মন হাওলাদারের বড় ভাই এবং চরমুক্তারপুর মাদক নির্মুল কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে শহর আলী, জামাই শাহ আলমসহ দশ বারো জনের একটি দল রাত সাড়ে ৮টার দিকে আব্দুল জলিল দেওয়ানের ছেলে নুরুল হক (৩৮) কে এলোপাথাড়ি লাঠি সোটা দিয়ে আঘাত করে এবং বলতে থাকে তুই এ সংবাদ পুলিশকে দিয়েছিস।

মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালে গুরুতর আহত অবস্থায় আসা নুরুল হক এ অভিযোগ করেন। তিনি জানান, ডিবি পুলিশের সামনেই আমাকে মারধর করা হয়।

নুরুল হক আরো বলেন, আমি একজন সাধারণ মানুষ। এ বিষয়ে ভালো মন্দ আমি কিছুই জানি না। আমার অপরাধ, এ ফার্মের পাশেই আমার বাড়ি। আমি এখন ভীত সন্তোস্ত অবস্থায় রয়েছি। আমি নিরাপত্তা চাই। ভালোমন্দ না জেনেও ফার্মের পাশে আমার বসবাস বিধায় তারা আমাকে সন্দেহ করছে। আমার ও আমার পরিবারের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় পুলিশের সহযোগিতা চাই।

অভিযোগ রয়েছে, উক্ত গরুর ফার্মে নিয়মিত গাঁজা সেবন করার আড্ডা বসত। সেখান থেকে ডিবি পুলিশ অনেকগুলি গাঁজার পুড়িয়া এবং গাঁজা সেবনের সরঞ্জামাদিও উদ্ধার করে। অনেকের ধারণা অনেকদিন যাবতই গাঁজা গাছ রোপণ করে এখানে সেবন আড্ডা চলছে।

ডিবি ওসি মোজাম্মেল হক বলেন, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করতে সক্ষম হই। গাঁজা গাছ জব্দ করে নিয়ে এসেছি। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে।