সংবাদ শিরোনাম
করোনায় ঢাকার সাবেক এমপি মকবুলের মৃত্যু | বরিশালে ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্তদের ঘর মেরামত করে দিলেন সেনাবাহিনী | এবার প্রবাসীদের বাড়িতে ঈদ উপহার পাঠালেন মাশরাফি | ইতালিতে ঈদুল ফিতর উদযাপন করলেন ২৫ লাখ মুসল্লি | করোনাকালে “এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট” হিসেবে দায়িত্ব পালনের গল্প | ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মহীনদের ঈদ উপহার দিল সেনাবাহিনী | করোনা চিকিৎসায় ১৩টি হাসপাতালে রেমডেসিভির সরবরাহ শুরু | কৃষকদের ধান কেটে দেওয়ায় ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন | জীবিকার স্বার্থে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী | “পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সরকারি সহায়তা অব্যাহত থাকবে” |
  • আজ ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নবজাতকের ওষুধের গুজবে কান ভারী!

২:৪০ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, মার্চ ২৭, ২০২০ মুক্তমত

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক:দিনাজপুর,রংপুর ও কুড়িগ্রামে বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সন্ধ্যা থেকে গুজব ছড়ায় যে করোনার ওষুধ দিয়েছে এক নবজাতক!

শুধু তাই নয়, নবজাতক জন্মের পরেই করোনার ওষুধ দিয়েই মারা যায় বলেও খবর ছড়ায়।

এলাকাবাসীর ভাষ্য, দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরে গত বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুরে এক নবজাতকের জন্ম হয়। জন্মের পরপরই কথা বলতে শুরু করে এ নবজাতক। সেই নবজাতক বলেছে, করোনাভাইরাস পার্বতীপুরেও আক্রমণ করেছে। এ ভাইরাসের কোনও প্রতিষেধক নেই। তবে লবঙ্গ, সাদা এলাচ আর আদা পানিতে সিদ্ধ করে খেলে করোনা ভাইরাস হবে না। দিনে যতবার সম্ভব খেতে হবে। সেই সঙ্গে রং চা চিনি ছাড়া খেলেও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করা যাবে। এসব প্রতিষেধকের কথা বলেই নবজাতকটি মারা গেছে।

এ গুজব ছড়িয়ে পড়ার পরই রাত থেকে গ্রাম অঞ্চলের মানুষ লবঙ্গ, সাদা এলাচ আর আদা সিদ্ধ করে খাওয়া শুরু করেছে। উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি উপজেলায় এসব খাওয়ার ধুম পড়ে গেছে।

বদরগঞ্জ উপজেলার মাসুদ রানা নামের এক ব্যক্তি জানান, তিনি তার এক বড় ভাইয়ের কাছে এসব ওষুধের কথা শুনেছেন। সেই বড় ভাই ঘটনাটি শুনেছেন চায়ের দোকানে আড্ডা দেয়ার সময় এক রিকশাচালকের কাছ থেকে।

এদিকে পার্বতীপুরে নবজাতকের জন্ম-মৃত্যু ও করোনাভাইরাসের প্রতিষেধকের কথা জানিয়ে দেয়ার বিষয়টি ইতোমধ্য ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

কিন্তু পার্বতীপুরে নবজাতকের জন্মের বিষয়টি জানতে গতকাল রাত থেকে সেখানে খোঁজ নেয়া হলেও সে রকম কোনো জন্মজাতকের জন্ম ও মৃত্যুর বিষয়ে তথ্য জানা যায়নি।

তবে কিছুদিন আগে, আদা ও রসুন পানিতে ভিজিয়ে খেলে করোনাভাইরাস হবে না এমন তথ্য ছড়িয়ে পড়ার পর বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছিল, এসবের কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।