• আজ ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনা শুনে হাসপাতাল থেকে পালালো যুবক, চিকিৎসকসহ কোয়ারেন্টাইনে ৭

৫:৪৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

এ.এম উবায়েদ, নিজস্ব প্রতিবেদক- কিশোরগঞ্জে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সন্দেহজনক উপসর্গ নিয়ে আসা রোগী হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছেন।

জেলার হোসেনপুর উপজেলা থেকে কামাল হোসেন নামে একজন রোগী সর্দি, কাশি ও জ্বর নিয়ে রোববার (২৯ মার্চ) সকাল ১১ টায় শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন।

পরে টিকিট কেটে চিকিৎসকের কাছে গেলে চিকিৎসক তাকে এক্স-রে ও আলট্রাসনোগ্রাম করতে বলেন। ডা. হাফিজুর রহমান মাসুদ আলট্রাসনোগ্রাম ও এক্স-রে করে সন্দেহ করেন ওই রোগী হয়তো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের প্যাথলজি বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক হাফিজুর রহমান মাসুদ জানান, রোগী কামাল হোসেন করোনায় আক্রান্ত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

চিকিৎসক যখন রিপোর্ট লিখবেন এই সুযোগে রোগী কামাল হোসেন দৌড়ে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় হাসপাতালে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে তাৎক্ষণিকভাবে রোগীর সংস্পর্শে আসা তিন চিকিৎসক ও চার স্টাফকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়।

একই সময় কিশোরগঞ্জ শহরের নগুয়া এলাকার ধ্রব নামে এক যুবক হাসপাতালে সর্দি-কাশির চিকিৎসা নিতে আসে। তাকে একটি বিশেষ পরীক্ষার জন্য শহরের মেডিস্ক্যান ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পাঠালে সেখান থেকে ধ্রব পালিয়ে যায়। পরে ধ্রুবকে চিহ্নিত করা হয় এবং তাকে তার বাসায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

আর ধ্রব নামে রোগীর বিষয়টি সম্পর্কে ডা. মারুফ বলেন, সে করোনায় আক্রান্ত এমন কোন লক্ষণ পাওয়া যায়নি।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. হেলাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোগীর সংস্পর্শে যাওয়া তিন চিকিৎসক ও চার স্টাফকে কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছে।

হোসেনপুর থেকে আসা রোগী কামালের অবস্থান জেনে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য হোসেনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ধ্রবকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।