• আজ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বগুড়ায় কর্মহীন ৩০ হাজার পরিবার পাবে চাল ও শুকনো খাবার

৬:০৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০ দেশের খবর, রাজশাহী

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি: করোনাভাইরাসের সংক্রমনের প্রভাবে মানুষ অনেকটাই হোম কোয়ারেন্টাইনে বা লকডাউনে প্রবেশ করেছে। আর এ কারণেই কর্মহীন হয়ে পড়েছে গরীব, দিনমজুর, কুলি, হোটেল শ্রমিক, রিক্সা-ভ্যান চালকসহ নিম্ন আয়ের মানুষ।

এসব মানুষগুলোর কথা চিন্তা করে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ত্রাণকার্য পরিচালনার জন্য বগুড়া সদর পৌরসভাসহ  জেলার ১১টি পৌরসভা ও ১০৮ ইউনিয়নের জন্য ২’শ ৮১ মেট্রিক টন জিআর চাউল এবং ১০৮ ইউনিয়নের জন্য নগদ ১০ লাখ ৮০ হাজার টাকা উপ-বরাদ্দ প্রদান করেছে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়।

জেলা দুর্যোগ মন্ত্রনালয়ের শাখার সূত্র মতে, জেলার বগুড়া পৌরসভায় ১০ মেট্রিক টন, জেলার অন্যান্য উপজেলার ১১টি পৌরসভার অনুকুলে ৫৫ মেট্রিক টন। জেলার ১০৮ ইউনিয়নের মধ্যে প্রতিটি ইউনিয়নে ২ মেট্রিক টন চাউল শ্রেণীভেদে ১০ কেজি করে প্রায় ৩০ হাজার পরিবার এবং শিশু খাদ্যসহ শুকনা খাবার ক্রয় করতে ইউনিয়ন ভিত্তিক নগদ ১০ হাজার টাকা বিতরণ করবে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য। আর এটা তদারকির কাজ করবে সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তাসহ ট্যাগ অফিসারবৃন্দ।

বগুড়া জেলা প্রশাসকের ত্রান ও দুর্যোগ শাখার সূত্রমতে, জেলার সারিয়াকান্দি পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের অনুকুলে ২৪ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। সোনাতলা পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের অনুকুলে ১৪ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ৭০ হাজার টাকা। শিবগঞ্জ পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের অনুকুলে ২৪ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। আদমদিঘী পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের অনুকুলে ১২ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ৬০ হাজার টাকা।

দুপচাচিয়া পৌরসভা ও তালোড়া পৌরসভায় ১০ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের অনুকুলে ১২ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ৬০ হাজার টাকা। কাহালু পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের অনুকুলে ১৮ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ৯০ হাজার টাকা। নন্দিগ্রাম পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের অনুকুলে ১০ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা। শেরপুর পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের অনুকুলে ২০মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ১লাখ টাকা। ধুনট পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের অনুকুলে ২০ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ১লাখ ২০ হাজার টাকা।

বগুড়া সদর পৌরসভায় ১০ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের অনুকুলে ২২মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ১লাখ ১০ হাজার টাকা। গাবতলী পৌরসভায় ৫ মেট্রিক টনসহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের অনুকুলে ২২ মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ১লাখ ১০ হাজার টাকা। শাহজাহান উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের অনুকুলে ১৮মেট্রিক টন চাউল ও এবং নগদ ৯০ হাজার টাকা। সবমিলিয়ে ১২টি পৌরসভা ও ১০৮টি ইউনিয়নে ২৮১ মেট্রিক টন জিআর চাউল ও নগদ ১০ লাখ ৮০ হাজার টাকা উপ-বরাদ্দ দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা মো. আজাহার আলী মন্ডল বলেন, ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের বরাদ্দকৃত উপ-বরাদ্দ সমূহ বর্তমানে করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের প্রভাবে কর্মহীন মানুষের জন্য। তবে আর এসব বরাদ্দের চাউল ও নগদ টাকায় কেনা সামগ্রী দ্রুত সময়ের মধ্যে বিতরণের জন্য সংশ্লিষ্টদের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মেয়র, ইউপি চেয়ারম্যানদের প্রতি তালিকা প্রেরণ করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বগুড়া জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ বলেন, উপ-বরাদ্দ অনুযায়ী জেলার সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ও পৌরসভার অনুকুলে সম্প্রতি করোনা ভাইরাসে প্রভাবে কর্মহীন গরীর, দিনমজুর, কুলি, হোটেল শ্রমিক, রিক্সা ভ্যান চালকসহ নিন্ম আয়ের মানুষের মধ্যে তালিকাভুক্তরা মাথাপিছু ১০ কেজি করে চাউল পাবে। এবং নগদ অর্থের বিনিময়ে শিশু খাদ্যসহ শুকনা খাবার ক্রয় করে তালিকা তৈরীপূর্বক বিতরণ করা হবে। তবে কেউ যদি সঠিক দায়িত্ব পালনে কোন স্বজনপ্রীতি বা অনিয়ম করেন তাহলে তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।