ট্রাকচালক-হেলপারকে আটক করে আইসোলেশনে পাঠাল পুলিশ

৫:৫৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০২০ দেশের খবর, সিলেট

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি- করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী বহনকারী সন্দেহে ট্রাক চালক ও তার হেলপারকে আটক করে আইসোলেশনে প্রেরণ করেছে হবিগঞ্জের বাহুবল থানা পুলিশ।

রবিবার (৫ এপ্রিল) রাত ১০ টায় বাহুবল উপজেলার মিরপুর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

জানা যায়, বাহুবল উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের সুন্দ্রাটিকি গ্রামের এখলাছ মিয়ার পুত্র লিমন মিয়া দীর্ঘদিন যাবৎ ঢাকাস্থ একটি গার্মেন্টসে চাকরি করে আসছিল। সম্প্রতি দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ায় সে ঢাকা অবস্থান করে আসছিল। বেশ কিছুদিন সে তার গ্রামের মা-বাবার কাছে ফোন করে করোনা সন্দেহের শারীরিক অসুস্থতার কথা জানায়।

পরে গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসতে চাইলে তার প্রতিবেশী ট্রাক চালক মৃত আলকাছ মিয়ার পুত্র মোজাম্মেল হক (২৫) এর মাধ্যমে ঢাকা থেকে ঢাকা- চ- ১৮০০২৫ নাম্বারের গাড়ির মাধ্যমে হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা করে। ইতোমধ্যে লিমনের বাড়িতে ফেরার ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে জানাজানি হলে বাহুবল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নিগ্ধা তালুকদার ও ভাদেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান বশির ট্রাক চালক মোজাম্মেলকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসতে অনুরোধ করেন।

কিন্তু করোনা আক্রান্ত লিমনকে অলিপুর এলাকায় নামিয়ে তাকে বহন করার কথা অস্বীকার করে ট্রাক চালক ও হেলপার। পরে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার পুলিশের সহযোগিতায় ট্রাকসহ চালক ও হেলপারকে আটক করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখা হয়।

বাহুবল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নিগ্ধা তালুকদার জানান, একটি ট্রাকে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে রোগী বহন করা হচ্ছে খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশের মাধ্যমে তাদের আটক করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। কিন্তু সন্দেহিত লিমনকে আটক করা সম্ভব হয়নি। তাকে খোঁজা হচ্ছে, আশা করি খুব দ্রুতই বের করে চিকিৎসা দেয়া হবে।

বাহুবল উপজেলার ভাদেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান বশির জানান, লিমনের মোবাইল নাম্বার ট্র্যাকিং করা হচ্ছে। সে করোনা আক্রান্ত হয়েছে এই সন্দেহ নিয়ে ঢাকা থেকে পালিয়ে এসেছে। আমরা তাকে সুচিকিৎসা দিতে চাইলে সে ট্রাক থেকে পালিয়ে গিয়ে আত্মগোপন করেছে।

হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা(পিপিএম,বিপিএম-সেবা) জানান, ট্রাক চালক ও হেলপারকে আটক করে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। বিষয়টি যাচাই-বাচাই করে আরও গভীরভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশা করছি খুব দ্রুত তথ্য উদঘাটন করা হবে।